ঢাকা, রোববার, ৭ আগস্ট ২০২২

বিছানার সঙ্গী হলে ক্যাম্পে কাজ করার সুযোগ পাবে

প্রকাশ: ২০২২-০৪-২০ ১৯:১৪:৩১ || আপডেট: ২০২২-০৪-২২ ১৯:২২:৩১

নিজস্ব প্রতিবেদক:

কেবল বিছানার সঙ্গী হলেই ক্যাম্পে কাজ করার সুযোগ পাবে, অন্যথায় মিলবে না কোনো কাজ। সম্প্রতি নারী কেলেঙ্কারিতে অভিযুক্ত কক্সবাজার রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি’র ইউ.লো আজরুল সফদারের বিরুদ্ধে এমন যৌন সুড়সুড়িমূলক কথোপকথনের প্রমাণ মিলেছে এক এনজিও কর্মীর দেওয়া হ্যান্ডসেটের ম্যাসেন্জারের স্ক্রিনশট থেকে।

এছাড়া উক্ত কেলেঙ্কারিতে নারী যোগানদাতা হিসেবে ভূমিকা পালন করেছে কক্সবাজার রেড ক্রিসেন্ট এর যুব প্রধান আসিফ রায়হান কাফী। এমনটাও অভিযোগ উঠেছে তার বিরুদ্ধে।

জানা গেছে, আজরুল সফদার দীর্ঘদিন ধরে কক্সবাজার রেড ক্রিসেন্ট ইউনিটে ইউ.লো হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছে। সেই সুবাদে রোহিঙ্গা ক্যাম্প এবং হোস্ট কমিউনিটির জন্য রেড ক্রিসেন্ট এর আওতাধীন যেসব প্রজেক্ট আসে সেখানে সেচ্ছাসেবী হিসেবে কাজ করার জন্য অনেক পুরুষ ও মহিলা কর্মীর প্রয়োজন হয়। সেই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে আজরুল সফদার বিভিন্ন মেয়েদের অনৈতিক সম্পর্ক করার প্রস্তাব করতেন এবং সম্মতি দিলে কাজ হবে অন্যথায় হবে না বলে হুঁশিয়ারি দেন।

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে মিন্টু দত্ত নামে এক স্বেচ্ছাসেবক নিজ আইডি আজরুল সফদারের কুকীর্তি স্ট্যাটাস এর মাধ্যমে তুলে ধরলে সেখানে কমেন্ট বক্সে যোগ হয় আরও অর্ধশতাধিক অনৈতিক প্রস্তাবের স্ক্রিনশট। যেখানে আজরুল সফদার বিভিন্ন মেয়েদের কাজের বিনিময়ে তার বিছানার সঙ্গী হওয়ার সরাসরি কু-প্রস্তাব দেয়।

এছাড়াও দেখা যায়, রেড ক্রিসেন্টের যুব প্রধান আসিফ রায়হান কাফি সে আজরুল সফদারের নারী যোগানদাতা হিসেবে ভূমিকা পালন করেছে।পরে ভুক্তভোগীদের কাছ থেকে হাতে-পায়ে ধরতে চেয়ে মাফ চাওয়া হয় বলে জানা যায়।

ঘটনাটি মুহূর্তে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে পড়লে পুরো কক্সবাজার জুড়ে নিন্দার ঝড় উঠে।
এই বিষয়ে আজরুল সফদারের মুঠোফোনে যোগাযোগ করতে চাইলে তার সংযোগ বন্ধ পাওয়া যায়। এছাড়াও তার ফেইসবুক আইডিতে সেচ্ছাসেবীদের প্রতিবাদমূলক কমেন্টে ভরে গেলে সাথে সাথে আইডি ডিএক্টিভ করে দেয়।

অধিকন্তু কক্সবাজার রেড ক্রিসেন্ট এর স্বেচ্ছাসেবক শাদাত হোসেন জিসান, মোঃ সবুজ এবং দূর্জয় দাশ সহ অনেকে তার কুকীর্তি প্রতিবাদ করলে উল্লেখিত তিনজনকে কোনো কারন ছাড়াই বহিষ্কার করা হয়।

ইউনিটে কর্মরত সকল সেচ্ছাসেবীরা বলেন, আমরা এর বিচার চাই এবং অভিযুক্ত দুইজনের দ্রুত অপসারণ ও শাস্তি চাই।

কোনো কারণ ছাড়া সেচ্ছাসেবকদের বহিস্কার আদেশ তুলে না নিলে তীব্র আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দিয়েছে প্রাক্তন যুব সেচ্ছাসেবক ও বর্তমানে কর্মরত যুব সেচ্ছাসেবকরা।

সিএসবি-টুয়েন্টিফোর- ২০/৪-থ, (ক্রাইম)