ঢাকা, বুধবার, ১৭ আগস্ট ২০২২

চিৎমরমে ধর্ষণের শিকার এক নারী, ধর্ষক পলাতক

প্রকাশ: ২০২২-০১-১৮ ১৬:৫১:১৯ || আপডেট: ২০২২-০১-১৮ ১৬:৫১:৩৬

কাপ্তাই প্রতিনিধি:
স্বামী পরিত্যক্ত এক নারীকে জঙ্গলে বেঁধে রেখে ধর্ষণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত সোমবার রাত প্রায় সাড়ে ৯ টায় কাপ্তাই উপজেলাধীন চিৎমরম ইউনিয়নের ৪ নং চংড়াছড়ি এলাকায়।

অভিযুক্ত ধর্ষক একই গ্রামের হ্লাখই মারমার ছেলে ছুমং উ মারমা (৪০)।

ঘটনাটি জানাজানি হওয়ার পর থেকে ধর্ষক ছুমং পালাতক রয়েছে বলে এলাকাবাসী জানিয়েছে।

মঙ্গলবার (১৮ জানুয়ারী) সকালে ধর্ষিতাকে তার আত্মীয়-স্বজন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে বেলা ১২ টার পর ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য তাকে রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালে পাঠানোর সময় ওই নারী উপস্থিত চিকিৎসক এবং সংবাদকর্মীদের জানান, তাকে গত সোমবার রাতে এলাকার ছুমং উ মারমা তার বসতবাড়ীর পাশের জঙ্গলে হাত-পা ও মুখ বেঁধে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেছে। বাঁধা দিলে লম্পট ছুমং তাকে মারধর করে। এসময় তার শরীরে বিভিন্ন অংশে আঘাতে চিহ্ন দেখা যায়।

কাপ্তাই স্বাস্থ্য বিভাগের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ ওমর ফারুক রনি জানান, ওই নারী আমাদেরকে জানান, তাকে ধর্ষণ করা হয়েছে। যেহেতু পরীক্ষার মাধ্যমে এটা প্রমান করতে হবে, তাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এই পরীক্ষা না থাকায় আমরা মহিলাকে রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করেছি।

৩ নং চিৎমরম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ওয়েশ্লিমং চৌধুরী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ওই গৃহবধূর পরিবারের সদস্যরা তাকে বিষয়টি অবহিত করেছেন।

চন্দ্রঘোনা থানার ওসি মোঃ ইকবাল বাহার চৌধুরী জানান, ঘটনার খবর জানার পর পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থল এবং হাসপাতালে ছুটে যায়। এবিষয়ে ডাক্তারী পরীক্ষার প্রয়োজন রয়েছে, তাই ডাক্তারী পরীক্ষা শেষে তদন্তের মাধ্যমে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ওসি জানান, এব্যাপারে এখনো থানায় কেউ মামলা দায়ের বা অভিযোগ করেনি। ঘটনার পর থেকে ধর্ষক পলাতক রয়েছে।