ঢাকা, বুধবার, ১৭ আগস্ট ২০২২

উখিয়ার মানুষ খুবই অতিথি পরায়ণ : সাঈদ মু: আনোয়ার

প্রকাশ: ২০২২-০৭-৩১ ২০:৪৬:৫২ || আপডেট: ২০২২-০৭-৩১ ২০:৪৬:৫২

নিজস্ব প্রতিবেদক:

কক্সবাজার তথা উখিয়ার মানুষ খুবই অতিথি পরায়ণ, সামাজিক, ভ্রাতৃত্ববোধ সম্পন্ন ও সহাবস্থানের বিশ্বাসী। দেশের বিভিন্ন জেলা হাজার হাজার নারী-পুরুষ এসে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে চাকরি করছে এবং তারা উখিয়া বা কক্সবাজারে বাসা নিয়ে থাকেন ৷ এই চাকুরীজীবিদের মধ্যে পুরুষের চেয়ে নারী সংখা বেশি। কিন্তু নারী ও পুরুষ সবাইকে আপন করে রেখেছেন কক্সবাজার তথা উখিয়ার মানুষ৷ তারা দিনে ও রাতে কোনো আতংক ছাড়াই নির্বিঘ্নে তাদের প্রয়োজনীয় কাজের পাশাপাশি কেনাকাটাসহ নিজেদের প্রয়োজনীয় কাজ সম্পন্ন করে যাচ্ছেন৷ এ পর্যন্ত কোনো এনজিওকর্মী বা বিদেশি নাগরিক উখিয়া মানুষের দ্বারা সরাসরি শারিরীক ও মানসিক এবং আর্থিক ক্ষতির শিকার হয়নি বলে উল্লেখ করেন উখিয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি সাঈদ মুহাম্মদ আনোয়ার।

রবিবার (৩১ জুলাই) সকালে পালস্ বাংলাদেশের হলরুমে আয়োজিত The Global Women’s Institute এর অর্থায়নে এনজিও “জাগো নারী উন্নয়ন সংস্থা” কর্তৃক বাস্তবায়িত Enhancing Protection to Female Volunteers and Staff in The Humanitarian Response in Cox’s Bazar শীর্ষক প্রজেক্টের উদ্যোগে আয়োজিত Dialogue With Development Partners CSOs Community Actors অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি এসব কথা বলেন৷

উখিয়া প্রেসক্লাব সভাপতি এসময় আরও বলেন, ১৩ লক্ষ রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে আশ্রয় দিয়ে উখিয়া-টেকনাফের মানুষ যে মানবিকতার পরিচয় দিয়েছে, তা বিশ্বে বিরল। পাশাপাশি এনজিওতে কর্মরত কর্মকর্তা-কর্মচারীর বিশাল জনগোষ্ঠীকে যথাযথ সম্মানের সহিত মেহমানের মর্যাদা দিয়ে উখিয়ায় কাজ করার সুযোগ করে দিতে পারার কারনে উখিয়াবাসী সারা দেশে দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে।

এই পর্যন্ত যে কয়জন নারী এনজিও কর্মী অনাকাঙ্ক্ষিত ভাবে শারিরীক হেনেস্তা বা যৌন হয়রানি শিকার হয়েছে সব গুলোই তাদের অফিস সহকর্মী বা অফিস উচ্চপদস্থ কর্মকর্তার দ্বারা অথবা অন্য এনজিওতে কর্মরত সহকর্মীর মাধ্যমে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী সংস্থা ও মিডিয়ার তথ্যতে এইটা স্পষ্ট প্রতীয়মান। তাই আইন প্রয়োগের চাইতে সকল স্থরে বেশী বেশী সচেতনতা, লিঙ্গ বৈষম্য দূর ও দায়িত্বশীলতা সৃষ্টি জরুরি।

জাগো নারী উন্নয়ন সংস্থার প্রজেক্ট ম্যানেজার প্রতিভা শাহ নেওয়াজের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত কর্মশালায় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন প্রোগ্রাম ম্যানেজার আবরার আল আমিন, প্রোগ্রাম ডিটেক্টর মোহাম্মদ শরিফুজ জামান৷

এসময় উপস্থিত থেকে মতামত পেশ করেন বিভিন্ন লোকাল এনজিও-আইএনজিও সংস্থার প্রতিনিধি, শিক্ষক, নারী নেত্রী, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি, সাংবাদিক সহ প্রমুখ৷