ঢাকা, সোমবার, ১৫ আগস্ট ২০২২

এনজিও কারিতাস ও পালস বাংলাদেশের বিরুদ্ধে সড়কের জায়গা দখল করে সীমানা প্রাচীর নির্মাণের অভিযোগ

প্রকাশ: ২০২২-০৭-৩০ ২০:৫২:২৭ || আপডেট: ২০২২-০৭-৩০ ২১:১০:৪০

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
উখিয়া হাজার হাজার মানুষের চলাচলের রাস্তা দখল করে কারিতাস ও পালস বাংলাদেশ এনজিও’সহ বেশ কয়েকজন প্রভাবশালীর বিরুদ্ধে সীমানা প্রাচীর নির্মাণের অভিযোগ তুলেছে স্থানীয়রা।

সরেজমিনে জানা গেছে, পালং গার্ডেন কমিউনিটি সেন্টার সংলগ্ন উত্তর পুকুরিয়ার জনগুরুত্বপূর্ণ সড়ক দিয়ে অত্র এলাকার অসংখ্য স্কুল মাদ্রাসার ছাত্র-ছাত্রীসহ কয়েকটি গ্রামের হাজারো মানুষ রিক্সা, টমটম, সিএনজি ও মাইক্রোবাস নিয়ে প্রতিদিন যাতায়াত করে।

অথচ ড্রেনেজ ব্যবস্থা না রেখে সড়কের জায়গা দখল করে সীমানা প্রাচীর দিয়ে তাদের স্থায়ী স্থাপনা করছে এনজিও কারিতাস ও পালস বাংলাদেশ এনজিও। যা প্রতিকার চেয়ে স্থানীয়রা গণস্বাক্ষর দিয়ে ইউএনও বরাবরে লিখিত অভিযোগ করেছে।

সচেতন মহলের পক্ষ থেকে কক্সবাজার জেলা আইনজীবী সমিতির সদস্য এডভোকেট আজাদ বলেন, এনজিও সংস্থা কারিতাস ও পালস বাংলাদেশ
ড্রেনেজ ব্যবস্থা না রেখে অবৈধভাবে সড়কের জায়গা দখল করে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করছে। যা কারণে উত্তর পুকুরিয়া এলাকার মানুষ বিভিন্ন অসুবিধার সম্মুখীন হচ্ছে।

তিনি বিষয়টা নিয়ে উপজেলা প্রশাসনের প্রতি সু-দৃষ্টি কামনা করে একটি সুস্থ ও সুন্দর ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে জোর দাবী জানান।

সমাজসেবক শাহনেওয়াজ বলেন, পালস বাংলাদেশ ও কারিতাস এনজিও ড্রেনেজ ব্যবস্থা না রেখে সড়ক ঘেঁষে সীমানা প্রাচীর তৈরী করার কারণে পথচারীদের চলাচলে সমস্যা সৃষ্টি হচ্ছে। ভবিষ্যতে রাস্তাটির প্রশস্থকরণ কাজও বিঘ্নিত হবে।

আব্দুর রহিম নামের আরেকজন বলেন, এই সড়কের বৃহত্তর টার্নিং পয়েন্ট দখল করে আদনান নামের একজন টিনের উঁচু বাউন্ডারি নির্মাণ করার ফলে অপরদিক থেকে আসা যানবাহন দেখা না যাওয়ার কারণে প্রতিনিয়তই দুর্ঘটনা ঘটছে বলে জানান।

প্রবীণ মুরব্বি মোহাম্মদ হাশেম বলেন, এই এনজিও সংস্থা গুলো পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না রেখে অত্র এলাকায় ভবন নির্মাণ করায় আমাদের কৃষি জমি গুলো দিন-দিন নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। আমরা ঠিক মতো কৃষি কাজ করতে পারছি না। একটু বৃষ্টি হলে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়।

এলাকাবাসী আরও অভিযোগ করে বলেন, গত ৫-৬ মাস আগে এ নির্মাণাধীন সীমানা প্রাচীরের বিরুদ্ধে এলাকাবাসী ফুঁসে ওঠলে কিছুদিন নিরব থাকার পর এনজিও সংস্থা কারিতাস ফের রাতের আঁধারে কাউকে তোয়াক্কা না করে সীমানা প্রাচীর দিওয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। আমরা এইসব এনজিও সংস্থার বিরুদ্ধে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে একটা লিখিত অভিযোগ করেছি।

এ বিষয়ে কারিতাস এনজিও’র স্থাপনা নির্মাণে দায়িত্বরত মুমিনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি এ প্রতিবেদকের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণ করে সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইমরান হোসাইন সজীব এর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, আমি ছুটিতে ছিলাম তাই লিখিত অভিযোগের বিষয়টি সম্পর্কে অবগত নয়। তবে বিষয়টা খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।