ঢাকা, শুক্রবার, ১৯ আগস্ট ২০২২

উখিয়া আ’লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন সম্পন্ন, জাহাঙ্গীর-সভাপতি, নুরুল হুদা- সম্পাদক

প্রকাশ: ২০২২-০৭-২৮ ১৯:৩৫:০৪ || আপডেট: ২০২২-০৭-২৮ ১৯:৩৭:৫৮

পলাশ বড়ুয়া:

নানান কল্পনা-জল্পনা শেষে দীর্ঘ ৭ বৎসর পর অনুষ্ঠিত হয়েছে কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন ও কাউন্সিল অধিবেশন।

এবার সভাপতি পদে বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় নির্বাচিত হয়েছেন জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী। তিনি সাবেক কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও রাজাপালং ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান।

অপরদিকে সাধারণ সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্ধিতা করেছেন ৩ জন প্রার্থী। তৎমধ্যে সাবেক ছাত্রনেতা নুরুল হুদা কাউন্সিলারদের প্রত্যক্ষ ভোটে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও রত্নাপালং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান। অপর দুইজন প্রার্থীরা হলেন, কামাল উদ্দিন মিন্টু এবং ফরিদুল আলম কন্ট্রাক্টর।

২৮ জুলাই বিকেলে উখিয়া সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় হল রুমে উৎসাহ-উদ্দীপনায় উখিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

এবারের সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ।

এসময় তিনি বলেছেন, বিএনপি-জামায়াত লন্ডনে বসে সন্ত্রাসী তারেক জিয়ার নির্দেশে দেশে নৈরাজ্য সৃষ্টি করার চেষ্টা চালাচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উন্নয়নকে অস্বীকার করে দেশে গুজব ছড়াচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আছে বলে দেশের মানুষ গণতন্ত্রের সুফল পাচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, জিয়া রহমান স্বাধীনতার ঘোষক নয়, বিএনপি মিথ্যা আশ্রয় নিয়ে বারবার মানুষকে বিভ্রান্তি করার চেষ্টা করছে।

তিনি বলেন, গোয়েন্দা সংস্থার কাছে খবর এসেছে বিএনপি দেশে আবারও নাশকতামূলক কর্মকাণ্ডের জন্য পরিকল্পনা করছে। লন্ডন থেকে পলাতক সন্ত্রাসী তারেক রহমান নাশকতার নির্দেশ দিয়েছে। বিএনপি দেশে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড করার পাঁয়তারা করছে। আমাদের দলের সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে। সরকার আন্দোলনের নামে দেশের রাজপথে অস্থির করার সুযোগ দেবে না।

আওয়ামী লীগের এ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, আওয়ামী লীগ জনগণের রায়ের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। আগামী নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু হবে। ২০২৩ সালের ডিসেম্বর অথবা ২০২৪ সালের জানুয়ারিতে জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। আমরা চাই সেই নির্বাচনে সব দল অংশ নেবে। নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে আপনাদের জনপ্রিয়তা যাচাই করার মানসিক প্রস্তুতি নিন।

তিনি বলেন, বিএনপি নির্বাচনে অংশ না নেওয়ার কথা বলছে তার কারণ একটাই। তাদের নেত্রী খালেদা জিয়া এতিমের টাকা আত্মসাৎ মামলায় দণ্ডিত হয়েছেন। নির্বাচনে অংশ নেওয়ার সুযোগ নেই। তারেক রহমান হাওয়া ভবন বানিয়ে লুটপাট করেছে। দণ্ডিত, পলাতক আসামি তারেক রহমানও নির্বাচনে অংশগ্রহণের সুযোগ নেই। তাই তাদের ফন্দিফিকির একটাই অন্য কোনো সরকার এসে সুযোগ দলে নির্বাচনে অংশ নেবে।

হানিফ বলেন, বিএনপির সিনিয়র নেতারা কথায় কথায় মিথ্যাচার করে জাতিকে বিভ্রান্ত করছেন। মহামারি করোনার পর রাশিয়া ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে সারা পৃথিবীতে খাদ্যের সংকট চলছে। সবকিছুর দাম বাড়ছে। ঠিক এসময়েও বিএনপির সিনিয়র নেতারা মিথ্যাচার করে জাতিকে বিভ্রান্ত করছেন।

তিনি বলেন, বিএনপি নেতারা বলেছেন আওয়ামী লীগ সরকারের সময় নাকি দেশের রিজার্ভের পরিমাণ সবচেয়ে কম। অথচ বিএনপি ক্ষমতায় থাকার সময় দেশে রিজার্ভ ছিল ৫ বিলিয়ন ডলার। আর এখন এতো সংকটের মধ্যেও দেশের রিজার্ভ ৪০ বিলিয়ন ডলার। বিএনপি নেতারা এই নির্লজ্জ মিথ্যাচারের আগে আয়নায় তাদের নিজের চেহারা দেখা প্রয়োজন।

এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন এমপি, কেন্দ্রীয় কমিটির ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা, কক্সবাজার-রামু আসনের সংসদ সদস্য সাইমুন সরওয়ার কমল, মহেশখালী কুতুবদিয়ার সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ রফিক, উখিয়া টেকনাফের সাবেক সংসদ সদস্য আবদুর রহমান বদি, কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এডভোকেট ফরিদুল আলম, কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র মজিবুর রহমান, কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নাজনীন সারওয়ার কাবেরী, আওয়ামী লীগ নেতা রঞ্জিত দাশ, সাংগঠনিক টীম প্রধান শাহ আলম চৌধুরী রাজা।

এর আগে সকাল ১০টার দিকে উখিয়া উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত প্রথম অধিবেশনে উখিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও রাজাপালং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরীর সঞ্চালনায় সভাপতিত্ব করেন উখিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উখিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ হামিদুল হক চৌধুরী।

এতে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের ও ছাত্রলীগ যুবলীগ কৃষকলীগ সেচ্ছাসেবক লীগের নেতৃবৃন্দ।