ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৮ আগস্ট ২০২২

ছিনতাইকারীর কবলে পড়া জবি শিক্ষার্থী মানসিকভাবে বিকল

প্রকাশ: ২০২২-০৭-২৪ ২৩:৫২:০১ || আপডেট: ২০২২-০৭-২৪ ২৩:৫২:৪২

ঢাকা প্রতিনিধিঃ

বিভাগীয় থিসিসের কাজে বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) সকালে রাজধানীর মিরপুর চিড়িয়াখানায় যান জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের স্নাতকোত্তরের শিক্ষার্থী পারিসা আক্তার। কাজ শেষে সেখান থেকে তানজিল পরিবহনের একটি বাসে করে সদরঘাটে যাচ্ছিলেন তিনি। যাওয়ার পথে ছিনতাইকারী তাঁর মোবাইল ছিনিয়ে নেয়।

এ সময় ছিনতাইকারীর পিছু ধাওয়া করেন পারিসা। ওই ছিনতাইকারীকে ধরতে না পারলেও অন্য এক ছিনতাইকারীকে ধরে ফেলেন তিনি। এরপর একাই বেধড়ক মারধর করেন তিনি। এরই মধ্যে ওই ঘটনা একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

রোববার (২৪ জুলাই) এ ঘটনার বিষয়ে বর্ণনা দেন জবি’র শিক্ষার্থী পারিসা আক্তার।

তিনি বলেন, আমার মোবাইল ছিনতাইকারী নিয়ে যায়, তখন দৌড়ে গিয়েও তাকে ধরতে পারিনি। একটু পরেই আরেক ছিনতাইকারী যখন একই জায়গা থেকে অন্যজনের ফোন ছিনতাই করে আমি তাকে ধরে ফেলি এবং মারতে শুরু করি। এ সময় চারপাশ থেকে মানুষ শুধু দেখেই গেছে, কেউ এগিয়ে আসেনি। কেউ কেউ দেখেও না দেখার ভান করেছে।

পারিসা আক্তার আরো বলেন, মোবাইলে আমার থিসিসের অনেক ডক্যুমেন্টস্ ছিলো। মোবাইল হারিয়ে যাওয়ায় গবেষণা প্রতিবেদন তৈরি করা এখন অসম্ভব হয়ে পড়েছে। নতুন করে আবার থিসিসের কাজ করা খুবই কষ্টকর। এক ধরনের মানসিক বিষণ্ণতার মধ্যে রয়েছি।

তিনি আরো বলেন, পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করছি, তারা এখনো মোবাইলের বিষয়ে কোনো আপডেট দেয়নি। আমি তেজগাঁও থানায় মামলা করেছি।

ওই ছাত্রীর সঙ্গে থাকা তার সহপাঠী সিয়াম আহমেদ বলেন, ওই সময় মানুষ শুধু ভিডিও করছিলো। কিন্তু কেউ সাহায্য করেনি। এরপর আমরা পুলিশে ফোন দেই। পরে এক সাংবাদিক আমাদের সহায়তায় এগিয়ে আসে।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মোস্তফা কামাল বলেন, আমরা বিষয়টি জেনেছি। আইনী কোনো সহায়তার প্রয়োজন হলে আমরা সব সময় পাশে আছি।

সিএসবি-টুয়েন্টিফোর;২৪/৭ঃঅ-১১৬(স+০০১২৩)