ঢাকা, বুধবার, ১৭ আগস্ট ২০২২

অতিরিক্ত সচিব এর মুখে হাসি ফুটিয়েছেন, কোতোয়ালি থানা পুলিশ

প্রকাশ: ২০২২-০৭-১৪ ১১:৪৩:৪৮ || আপডেট: ২০২২-০৭-১৪ ১১:৪৩:৪৮

 

মোহাম্মদ ইমরান:

অতিরিক্ত সচিব (অবসরপ্রাপ্ত) ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে বাসে চট্টগ্রামের কদমতলী নামেন। কদমতলী থেকে সিএনজি যোগে তাঁর বর্তমান ঠিকানা নন্দনকাননে এসে, রাত আনুমানিক ১:৩০ মিনিঃ সময় ভুলবশত সিএনজিতে একটি ব্যাগ রেখে নেমে যান।

বুধবার (১২ জুলাই) রাতে ঘটনাটি ঘটেছেন বলে জানিয়েছেন, চট্টগ্রাম কোতোয়ালি থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক মিজানুর রহমান চৌধুরী।

কোতোয়ালি থানা সূত্রে জানা গেছে, এক ভদ্রলোকের একটি ব্যাগ হারিয়ে যায়। সে অনেক খোঁজাখুঁজি করে ব্যাগের কোন হদিস না পেয়ে। শেষ পর্যন্ত কোতোয়ালী থানায় শরণাপন্ন হয়ে একটি জিডি করলে।

কোতোয়ালী থানার এসআই মিজানুর রহমান চৌধুরী এবং এসআই মৃণাল কান্তি মজুমদার। “Eyes of CMP” (সিএমপি কর্তৃক মহানগর ভিজিল্যান্স প্রোগ্রাম) এর মাধ্যমে সিসিটিভি ফুটেজ পর্যালোচনা করে গাড়ির নাম্বার সনাক্ত করে “আমার গাড়ি নিরাপদ” ডাটাবেজ থেকে গাড়ির মালিক এবং চালকের তথ্য সংগ্রহ করে ব্যাগটি উদ্ধার করেন।

পরে, পুলিশের পক্ষ থেকে উদ্ধার হওয়া ব্যাগটি হস্তান্তর করার সময় জানতে পারেন। হারানো ব্যাগটির মালিক হলেন, শংকর প্রসাদ দেব, অতিরিক্ত সচিব (অবসরপ্রাপ্ত)।

এই বিষয়ে, পুলিশের উপ-পরিদর্শক মিজানুর রহমান বলেন, কোতোয়ালি থানার অফিসার ইনচার্জ এর নির্দেশে আমি এবং মৃণাল কান্তি মজুমদার। ব্যাগটির উদ্ধার অভিযানে নামলে। অল্প সময়ের মধ্যে ব্যাগটি উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। পরে, ব্যাগটি হস্তান্তর করার সময় জানতে পারি, ব্যাগটির মালিক হলেন, শংকর প্রসাদ দেব স্যার, অতিরিক্ত সচিব (অবসরপ্রাপ্ত)।

তিনি আরো বলেন, শংকর প্রসাদ দেব স্যার, ২০০১ সাল থেকে ২০০৪ সাল পর্যন্ত উখিয়া উপজেলার নির্বাহী অফিসার ছিলেন। আমি তখন ক্লাস ২ তে পড়ি। দীর্ঘ ৩ বছর সেবা করেছেন আমার এলাকায়। সুতরাং আজ আমি সুযোগ পেয়ে উখিয়ার মানুষের পক্ষে কিছু করার চেষ্টা করেছি।

এইদিকে, হারানো সকল মালামালসহ ব্যাগটি পেয়ে শংকর প্রসাদ দেব বলেন “এতো অল্প সময়ে টিম কোতোয়ালীর কাজের অগ্রগতি দেখে আমি সত্যিই অনেক আনন্দিত এবং আশান্বিত। সিএমপি কর্তৃক “আমার গাড়ি নিরাপদ” নামক একটি সুন্দর প্ল্যাটফর্ম তৈরি করার জন্য তিনি কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন সিএমপি তথা বাংলাদেশ পুলিশের প্রতি।