ঢাকা, মঙ্গলবার, ৯ আগস্ট ২০২২

উৎসবমুখর ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে চন্দ্রঘোনায় ভোটগ্রহণ চলছে

প্রকাশ: ২০২২-০৬-১৫ ১৫:২০:৫৩ || আপডেট: ২০২২-০৬-১৫ ১৫:২০:৫৩

কাপ্তাই প্রতিনিধি:
উৎসবমুখর পরিবেশে বিপুল সংখ্যক মহিলা ভোটারের উপস্থিতি এবং কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে বুধবার (১৫ জুন) কাপ্তাই উপজেলার ১নং চন্দ্রঘোনা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৯টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহন চলছে। সকাল ৮ টা হতে বিরতিহীন ভাবে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত ইভিএম পদ্ধতিতে এই ইউনিয়নে ভোট গ্রহন হচ্ছে।

সকাল ৮টা ১০ মিনিটে মিশন এলাকার বিএম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায়, বিপুল সংখ্যক ভোটার সারিবদ্ধভাবে লাইনে দাঁড়িয়ে আছেন ভোট দেওয়ার জন্য।

এসময় এই কেন্দ্রে মহিলা ভোটারের ব্যাপক উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে। এই কেন্দ্রে ভোট দিতে আসা ৮০ বছর বয়সী অসুস্থ সুলতান আহমদ তার পরিবারের সদস্যদের সহায়তায় ভোট দিতে আসেন। তিনি জানান, এ বয়সে অনেকগুলো সিঁড়ি বেয়ে এসে ভোট দিতে পেরে খুব আনন্দ লাগছে।

এই কেন্দ্রে ভোট দিতে আসা ৮৫ বছর বয়সী উদা খিয়াং জানান, সুষ্ঠুভাবে ভোট গ্রহণ চলছে। কেন্দ্রের প্রিসাডিং অফিসার নিরালা চাকমা জানান, ৮ টা ৩৫ মিনিট পর্যন্ত ৩টি বুথে ৪৫ টি ভোট পড়েছে।

সকাল ৯ টায় কেপিএম স্কুল কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায় এখানেও ভোটার উপস্থিতি সন্তোষজনক। কেপিএম স্কুলে আলাদা আলাদা কক্ষে ৫ নং, ৭ নং ও ৮ নং ওয়ার্ডের ভোট গ্রহন করা হচ্ছে।

এই কেন্দ্রে ভোট দিতে আসা শারীরিক প্রতিবন্ধী মোঃ সেলিম ও মোঃ বেলাল এবং ৮০ বছর বয়সী আবুল কালামও জানান, তারা ভোট দিতে পেরে খুশী।
সকাল ৯ টা ৪৫ মিনিটে রেশম গবেষণা কেন্দ্রে গিয়ে দেখা গেছে, বিপুল সংখ্যক পুরুষ ও মহিলা ভোটার সকাল ৮ টা হতে দাঁড়িয়ে আছে ভোট দেওয়ার জন্য। এসময় বেশ কয়েকজন ভোটার অভিযোগ করেন ভোট গ্রহন কার্যক্রম ধীরগতি হচ্ছে। এই বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে এই কেন্দ্রের দায়িত্বরত প্রিসাইডিং অফিসার সোশেল চাকমা জানান, অনেক বয়স্ক ভোটার কিভাবে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট দিবে সেবিষয়ে অবগত নয়। তাই ভোট গ্রহনকারী কর্মকর্তারা তাদেরকে এবিষয়ে শিখিয়ে দিচ্ছেন। যার ফলে একটু দেরী হচ্ছে। এই কেন্দ্রে ভোট দিতে আসা বয়স্ক মকসুদা বেগম, রীনা তনচংগ্যা জানান, দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাঁড়িয়ে অবশেষে ভোট দিতে পেরে আনন্দ লাগছে।
সকাল সাড়ে ১০ টায় বারঘোনিয়া মুখ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে দেখা গেছে, এখানেও বিপুল সংখ্যক ভোটারের উপস্থিতি রয়েছে। শারীরিকভাবে অসুস্থ ৭০ বছর বয়সী সুবল মল্লিককে তার পরিবারের সদস্যরা কোলে করে নিয়ে আসছেন ভোট দেওয়ার জন্য।

এই কেন্দ্রে কথা হয় আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় নিয়োজিত কাপ্তাই থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আকতার হোসেনের সাথে। তিনি জানান, শান্তিপূর্ণভাবে কোন রকম অপ্রিতীকর ঘটনা ছাড়াই ভোট গ্রহন চলছে।
বেলা ১১ টায় কেআরসি উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোটার উপস্থিতি কম দেখা গেছে। কারন জানতে চাওয়া হলে অনেকে বলেন, অনেক ভোটার চাকরিজনিত কারনে অন্যত্র বদলি হয়ে গেছে এবং মহিলা ভোটাররা হয়তো দুপুরের পর আসবেন।

চন্দ্রঘোনা ইউনিয়নের বিভিন্ন কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায়, প্রতিটি কেন্দ্রে ১৭ জন আনসার সদস্য, ৫ জন পুলিশ সদস্য কেন্দ্রে দায়িত্ব পালন করছেন। পাশাপাশি পুলিশ ও বিজিবির একাধিক টিম টহলে রয়েছেন।

এরআগে সকাল ৮ টা ৪৫ মিনিটে কেপিএম স্কুল কেন্দ্রের বাহিরে কথা হয়, আওয়ামী লীগ মনোনিত নৌকা মার্কার প্রার্থী আকতার হোসেন মিলনের সাথে। তিনি জয়ের ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। সকাল ৯ টায় কেপিএম স্কুল কেন্দ্র পরিদর্শন করতে আসা স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী আনারস প্রতিক নিয়ে প্রতিদ্বন্ধিতাকারী বিপ্লব মারমা জানান, যদি সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হয়, তাহলে আমি জয়ী হবো।

কাপ্তাই উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং কর্মকর্তা তানিয়া আক্তার জানান, এই ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৩ জন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট, ১ জন জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়া আচরণবিধির নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট হিসাবে কাপ্তাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুনতাসির জাহান প্রচার প্রচারনার দিন হতে দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি আরও জানান, অত্যন্ত সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ ভাবে নির্বাচন চলছে।

উপজেলা নির্বাচন অফিস সুত্রে জানা যায়, এই ইউনিয়ন চেয়ারম্যান পদে ২ জন, সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ১৩ জন এবং সাধারণ সদস্য পদে ২১ জন প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন। ইতিমধ্যে ২ জন ইউপি সদস্য বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় নির্বাচিত হয়েছে।

এই ইউনিয়নে মোট ভোটার ১০ হাজার ১শ’ ৬০ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ৫ হাজার ৪শ’ ৮৮ এবং মহিলা ভোটার ৪ হাজার ৬ শ’ ৭২ জন।