ঢাকা, বুধবার, ১৭ আগস্ট ২০২২

রামুতে দোকান কর্মচারিকে ফিল্মী স্টাইলে কুপিয়ে জখম করলো ‘কিশোর গ্যাং’

প্রকাশ: ২০২২-০৬-১১ ০২:৪৩:২৮ || আপডেট: ২০২২-০৬-১১ ০২:৪৩:২৮

সোয়েব সাঈদ, রামু:
রামুতে দোকান কর্মচারিকে ফিল্মী স্টাইলে কুপিয়ে জখম করেছে সংঘবদ্ধ চক্র। দোকানের সিসিটিভি ফুটেজে ধারণকৃত হামলার একটি ভিডিওচিত্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও ছড়িয়ে পড়েছে।

বৃহষ্পতিবার, ৯ জুন রাতে রামু উপজেলা পরিষদ গেইটস্থ বেসিক কম্পিউটার এ তুচ্ছ ঘটনার জেরে পরিকল্পিতভাবে এ হামলার ঘটনা ঘটে। স্থানীয় কিশোর গ্যাং এর এমন বর্বরোচিত হামলার ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। এ ঘটনায় আহত দোকান কর্মচারি আকিবকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

হামলার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যান রামু উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রণয় চাকমা। তিনি হামলায় জড়িতদের ধরার জন্য তাৎক্ষনিক অভিযানও চালান।

বেসিক কম্পিউটার এর মালিক আকতার কামাল জানান- রাত আটটার দিকে রামুর পশ্চিম মেরংলোয়া গ্রামের সাঈদ, আকিবের নেতৃত্বে ৮/১০ জন কিশোর আকষ্মিকভাবে তার দোকানের ভিতরে প্রবেশ করে কর্মচারি আরিয়ানকে ছুরিকাঘাত শুরু করে।

এসময় তিনি দোকানে থাকলেও এমন বর্বরতায় হতভম্ব হয়ে পড়েন। পরে হামলাকারিরা আরিয়ানকে উপূর্যপরি ছুরিকাঘাত, শারীরিকভাবে মারধর ও দোকান ভাংচুর করে পালিয়ে যায়।

আহত দোকান কর্মচারি আরিয়ান (১৮) রামুর কাউয়ারখোপ ইউনিয়নের পশ্চিম মনিরঝিল দরগাহপাড়া এলাকার মুফিদুল আলমের ছেলে।

তিনি জানান- বৃহষপতিবার বিকালে সাঈদ নামের ছেলেটি দোকান গিয়ে ভোটার ফরম কিনতে চান। এসময় ফরমের মূল্য নিয়ে তার সাথে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে সাঈদ তাকে দেখে নেয়ার হুমকী দেন। এরই জের ধরে রাতে সাঈদ, আকিব সহ ৮/১০ ছেলে দোকানে গিয়ে তার মাথায় একাধিকস্থানে ছুরিকাঘাত ও শারীরিকভাবে মারধর করে।
জানা গেছে- হামলায় জড়িতদের মধ্যে ২ জনের পরিচয় পাওয়া গেছে। এরা হলেন- রামুর ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নের পশ্চিম মেরংলোয়া গ্রামের আজিজুল হকের ছেলে সাঈদ এবং গিয়াস উদ্দিনের ছেলে আকিব। হামলার সময় হামলাকারিদের সবাই মাস্ক পরিহিত ছিলেন।

রামু উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রণয় চাকমা শুক্রবার সকালে জানিয়েছেন- ‘হামলার পরপরই তিনি অভিযুক্ত সাঈদকে ধরার জন্য তার বাড়িতে গিয়েছিলাম। আহত আরিয়ানকে হাসপাতালে পাঠিয়েছি। এখন সাঈদ ও তার বাবা ঘটনার ভুল বুঝতে পেরে ক্ষমা চাওয়ার জন্য আসতে চাচ্ছে। বর্তমানে আমি কক্সবাজারে মন্ত্রী পরিষদ সচিবের একটি অনুষ্ঠানে রয়েছি। পরে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। জড়িতদের কোনভাবেই ছাড় দেয়া হবে না।

এ ঘটনায় আহত আরিয়ানের পরিবার থানায় মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানা গেছে।