http://www.csb24.com/archives/87603

ঢাকা, , বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০

অপহৃত কৃষককে ১দিন পর ছেড়ে দিয়েছে মিয়ানমার সীমান্তরক্ষীরা

প্রকাশ: ২০২০-০৯-০৯ ১৪:১৬:৩৩ || আপডেট: ২০২০-০৯-০৯ ১৪:১৬:৩৩

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥
নাইক্ষ্যংছড়ি থেকে অপহৃত বাংলাদেশি কৃষক মো. ইউছুফকে ২৪ ঘণ্টা পর ছেড়ে দিয়েছে মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষীরা। আজ বুধবার বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ ১১ বিজিবির পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিক প্রতিবাদলিপি পাঠানো হবে বলে সূত্র জানিয়েছে। এজন্য কোন পতাকা বৈঠক হয়নি।

গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তের ৪৭ নম্বর পিলার এলাকা দিয়ে ওই কৃষক ছাড়া পায়।

এর আগে গত সোমবার সন্ধ্যায় বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তের ফুলতলী জারুলিয়াছড়ি সীমান্তে গবাদি পশু চরানোর সময় বাংলাদেশি কৃষক মো. ইউছুফকে ধরে নিয়ে যায় মিয়ানমারের কিছু উপজাতি।

এ ঘটনার জন্য মিয়ানমারে বিজিপির সঙ্গে থাকা আনসার (নাঠালা) বাহিনীর সদস্যরা জড়িত বলে সীমান্তের লোকজন ও অপহৃতের পরিবার ধারণা করেছিল।

স্থানীয়দের সঙ্গে আলাপে জানা গেছে, ফুলতলী এলাকার জনৈক ইমাম হোসেনসহ কিছু ইয়াবাকারবারি মিয়ানমারের কিছু উপজাতির কাছ থেকে ইয়াবা ক্রয় করে টাকা পরিশোধ করেনি। আর সেই টাকা আদায়ের হাতিয়ার হিসেবে বাংলাদেশি কৃষক মো. ইউছুফকে ধরে নিয়ে যায়। তাদের ধারণা ছিল, কৃষক ইউছুফের পরিবারের মাধ্যমে ইমাম হোসেন ও অন্যান্য ইয়াবাকারবারিদের সঙ্গে যোগাযোগ করা সহজ হবে।

মিয়ানমার সীমান্ত থেকে ছাড়া পাওয়ার পর মো. ইউছুফ জানান, তাকে কিছু উপজাতি লোক ধরে নিয়ে যায়। তারা পোশাকধারী ছিল না। জারুলিয়াছড়ি এলাকার ইয়াবাকারবারিদের কাছ থেকে টাকা আদায়ের জন্য তাকে নিয়ে যায়।

নাইক্ষ্যংছড়ি সদর ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল আবছার ইমন ও ঘটনাস্থল এলাকার ইউপি মেম্বার আলী হোসেন জানান, মূলত ইয়াবার টাকা আদায়ের জন্য কৃষক ইউছুফকে নিয়ে গিয়েছিল মিয়ানমারের কিছু উপজাতি লোক। তবে সেই ইয়াবাকারবারিদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

নাইক্ষ্যংছড়ি ১১ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্ণেল শাহ আব্দুল আজিজ আহমেদ বলেন, সীমান্তে অন্যায়ভাবে অনুপ্রবেশ ও ঘোরাফেরাসহ কৃষক ইউছুফকে ধরে নিয়ে যাওয়ার বিষয়ে মিয়ানমার বিজিপিকে প্রতিবাদলিপি পাঠানো হবে।