http://www.csb24.com/archives/50007

ঢাকা, , রোববার, ৬ ডিসেম্বর ২০২০

বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে জাতীয় ফুল শাপলা ও পদ্মফুল

প্রকাশ: ২০১৬-০৪-০১ ২১:৩৮:৫১ || আপডেট: ২০১৬-০৪-০১ ২১:৩৮:৫১

রাষ্ট্রীয় ভাবে সংরক্ষণ জরুরী

download

এম বশর চৌধুরী উখিয়া:

জাতীয় ফুল হলেও শাপলা তেমন চোখে পড়ে না। সাধারণত খাল বিল, নদী-নালা ও পুকুরে এ ফুল চোখে পড়তো। কিন্তু কালের আবর্তে তা আজ হারিয়ে যেতে বসেছে। বর্তমানে খাল-বিল, নদী-নালা ভরাট ও শুকিয়ে যাওয়ার কারণে পদ্মফুলও দিন দিন বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে। রাষ্ট্রীয় ভাবে সংরক্ষণ করা না হলে হয়তো আর জাতীয় ফুলের অস্তিত্ব খুঁজে পাওয়া যাবে না। জেলার একাদিক প্রবীণ ব্যক্তি, শিক্ষাবিদ, শিক্ষানুরাগীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, পদ্মফুল সাধারণত বদ্ধ অ-গভীর জলাশয় এবং খাল-বিলে জন্মে থাকে। পদ্মফুল সাধারণত বর্ষাকালে ফোটে। একটি সাদা; অপরটি লাল। এলাকা থেকে লাল পদ্ম বিলুপ্ত হয়ে গেছে। আর সাদা পদ্ম বিলুপ্ত হওয়ার পথে। লাল পদ্মফুল কবিরাজদের বিভিন্ন উপকরণের সাথে ওষুধ হিসেবে ব্যবহার করে থাকে। আবার যখন জলাশয়ে ফুটে থাকে তখন প্রকৃতির সৌন্দর্যকে আরো রূপময় করে তোলে। আর সাদা শাপলা যখন ফুল থেকে ফলে পরিপূর্ণতা আসে তখন তাকে স্থানীয় ভাষায় ভ্যাট বলে। আর এই ভ্যাট থেকে এক ধরনের ছোট্ট ছোট্ট দানা বের হয়। আর এই দানা থেকে খই তৈরি হয়। পদ্ম ও শাপলা হারিয়ে যাওয়ার কারণ অনুসন্ধানে জানা গেছে, শাপলা ফুল অগভীর বদ্ধ জলাশয়ের খাল-বিল অঞ্চলে সাদা শাপলা জন্মে থাকলেও পুকুরে লাল শাপলা জন্মে থাকে। বর্তমানে বছরের প্রায় বার মাসই বোরো চাষ থেকে শুরু করে সব ধরনের আবাদ হওয়ার জন্য বিলুপ্ত হতে বসেছে শাপলা। এছাড়া বদ্ধ জলাশয় গুলো যেমন পুকুরগুলোতে আধুনিক পদ্ধীতিতে মাছচাষ করার ফলে শাপলা জন্মানোর ক্ষেত্র গুলো হারিয়ে যাচ্ছে। এলাকার সচেতন মহল, নবীন-প্রবীনদের অভিমত, লাল পদ্মফুল, জাতীয় ফুল শাপলা ও লাল শাপলা এক সময় হয়তো আর থাকবে না। তখন কাগজে-কলমে কিংবা কোন পাঠ্য বইয়ে আগামি প্রজন্মকে ধারনা নিতে হবে। তবে পদ্ম ও জাতীয ফুল শাপলা বিলুপ্তির হাত থেকে রক্ষা করাতে হলে সরকারি-বেসরকারিভাবে বিভিন্ন অঞ্চলের উদ্যোগ নিতে হবে। তবেই রক্ষা পাবে আমাদের জাতীয় ফুল শাপলা।