ঢাকা, বুধবার, ২৫ মে ২০২২

সীমান্তে দুই লাখ পিস ইয়াবা উদ্ধার, আটক -৩

প্রকাশ: ২০২২-০৩-০৫ ১৫:৩৭:০৬ || আপডেট: ২০২২-০৩-০৫ ১৫:৩৭:০৬

 

শহিদুল ইসলাম:
কক্সবাজারের উখিয়ার সীমান্তে অভিযান চালিয়ে প্রায় ২ লাখ পিস ইয়াবাসহ তিন মাদক কারবারি কে আটক করেছে র‍্যাব-৭। এ সময় তাদের কাছ থেকে নগদ টাকা ও মোবাইল সেট জব্দ করা হয।

আটককৃতরা হলো উখিয়ার সীমান্তবর্তী পালংখালী ইউনিয়নের ফারির বিল এলাকার মৃত ছৈয়দ নূরের ছেলে মোঃ হেলাল উদ্দিন (২৭) একই এলাকার আবুল বাশারের ছেলে মোঃ তারেক (২৩) ও মৃত আবদুস সালামের ছেলে নুরুল আমিন (১৯)।

আটককৃতদের দুপুরে উখিয়া থানায় সোর্পদ্দ করা হয়। ০৪ মার্চ (শুক্রবার) দুপুর ১২টার দিকে তাদের আটক করা হয়।

র‍্যাব-৭, এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) মোঃ নূরুল আবছার বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‍্যাবের চৌকস আভিযানিক দল উখিয়ায় চেকপোস্ট স্থাপন করে গাড়ী তল্লাশী শুরু করলে একটি অটোরিক্সা হতে ৩ জন ব্যক্তি পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টাকালে র‍্যাব তাদের আটক করে।

এসময় তাদের হাতে থাকা প্লাস্টিকের বস্তা হতে মোট ১ লাখ ৯৬ হজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। তাদের কাছ থেকে ইয়াবা পরিবহনে ব্যবহৃত অটোরিক্সাটি জব্দ করা হয়।

এদিকে, গ্রেফতারকৃত আসামীদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, হেলাল-তারেক অপেক্ষাকৃত কম বয়সে সর্বনাশা ইয়াবার ব্যবসা করে অধিক অর্থবিত্তের মালিক হওয়ায় এবং তারা খুব সহজেই তাদেরকে উদাহরণ হিসেবে উপস্থাপন করে যুবসমাজ তথা শিশু-কিশোরদেরও এই জঘন্য ব্যবসায় নিয়ে আসছে। ইয়াবা পাচারের জন্য তারা সবসময়ই শিশু-কিশোরদের ব্যবহার করতো। হেলাল-তারেক মায়ানমার সীমান্তে ইয়াবা ট্যাবলেট পাচারের অন্যতম বড় সিন্ডিকেট ছিলো।

তাদের জিজ্ঞাসাবাদে আরো জানা যায়, তারা টেকনাফ হতে ইয়াবা সংগ্রহ করে পরবর্তীতে তা কক্সবাজার এবং চট্টগ্রামসহ দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে বিক্রয় করে আসছে।

গ্রেফতারকৃত আসামীগণ এবং উদ্ধারকৃত মাদকদ্রব্য সংক্রান্তে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের নিমিত্তে সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানান র‍্যাবের এই কর্মকর্তা।

এ ব্যাপারে উখিয়া থানার ওসি আহমেদ সন্জুর মোরশেদ বলেন আটককৃতদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য আইনে মামলা রুজু করা হয়।