ঢাকা, সোমবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২২

খুটাখালীতে বিদ্যুতের ট্রান্সফরমার চুরির হিড়িক

প্রকাশ: ২০২২-০১-০৯ ১৪:৩৫:৩১ || আপডেট: ২০২২-০১-০৯ ১৪:৩৫:৩১

নিজস্ব প্রতিবেদক:
কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার খুটাখালীর বিভিন্ন এলাকায় প্রায় সময় পল্লী বিদ্যুতের ট্রান্সফরমার চুরি হচ্ছে। গত কয়েক দিনে উপজেলার খুটাখালী ইউনিয়নের চারটি গ্রাম থেকে ১০ কেবি’র ৫টি ট্রান্সফরমার চুরির ঘটনা ঘটেছে।

ট্রান্সফরমার চুরির ঘটনাকে কেন্দ্র করে চকরিয়া পল্লী বিদ্যুৎ অফিস থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে।

যেসব এলাকা থেকে ট্রান্সফরমার চুরি হয়েছে সেগুলো হলো, ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের ফুলছড়ি গেইট, ৯নং ওয়ার্ডের আবুশামা পাড়া, দলদলি পাড়া ও ৫নং ওয়ার্ডের হাফেজখানা সড়ক এলাকা থেকে মোট ৫টি ট্রান্সফরমার চুরি হয়ে গেছে।

ইউনিয়নের পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির গ্রাহকরা জানান, একেকটি ট্রান্সফরমারের দাম লাখ টাকা। প্রথম দফায় ট্রান্সফরমার চুরি হলে গ্রাহকদের অর্ধেক টাকা দিতে হয়। দ্বিতীয় দফায় চুরি হলে দিতে হয় পুরো দাম। আর ট্রান্সফরমার পেতে দিনের পর দিন ভোগান্তি তো আছেই। ট্রান্সফরমার স্থাপন না হওয়া পর্যন্ত থাকতে হয় বিদ্যুৎবিহীন।

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে পল্লী বিদ্যুতের চকরিয়া জোন অফিসের ডিজিএম সাদিকুল ইসলাম চুরির ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, এ ব্যাপারে থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। গ্রাহকদের দুর্ভোগ যেন না হয় সে লক্ষ্যে জরুরি ভিত্তিতে ওই সব স্থানে ট্রান্সফরমার প্রতিস্থাপন করা হচ্ছে।

কক্সবাজার জেলা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির মহাব্যবস্থাপক মোঃ আক্তারুজ্জামান লস্কর বলেন, ট্রান্সফরমার চুরি ঠেকাতে আমরা অনেক উপায় অবলম্বন করেছি।কোনো পদ্ধতিই তেমন কার্যকর হয়নি।

আমাদেরই এক প্রকৌশলী এমন একটি যন্ত্র তৈরি করেছেন যে ট্রান্সফরমার চুরি করা মাত্রই সাইরেনের মতো শব্দ হবে। ওই যন্ত্র কিছু স্থানে বসানোর চেষ্টা করছি এবং লোকজনকে ওই যন্ত্রের সঙ্গে পরিচিত করার চেষ্টা করছি।

চকরিয়া থানার ওসি মো. ওসমান গনি জানান, ট্রান্সফরমার চোরাই চক্রকে গ্রেফতার করার চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।