ঢাকা, সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১

পালংখালী ইউপি’র উদ্যোক্তা বাপ্পি ইয়াবাসহ আটক

প্রকাশ: ২০২১-১১-২২ ২২:২৬:০১ || আপডেট: ২০২১-১১-২৩ ১০:২৮:২৫

নিজস্ব প্রতিবেদক:

কক্সবাজারের উখিয়ার বালুখালীতে অভিযান চালিয়ে পালংখালী ইউনিয়ন পরিষদের তথ্য সেবা উদ্যোক্তা জিয়াউল হককে আটক করেছে র‍্যাব-১৫। এসময় তার কাছে থাকা ৪ হাজার ইয়াবা ও একাধিক ব্যাংকের চেক বই উদ্ধার করা হয়।

সোমবার (২২ নভেম্বর) ভোররাত ১টার দিকে বালুখালী বাজারস্থ পূর্ব পাড়া এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয় বলে জানিয়েছেন র‍্যাব-১৫’র সিনিয়র সহকারি পরিচালক  এএসপি মো. আবু সালাম চৌধুরী।

জিয়াউল হক বাপ্পী (৩৭) পালংখালী ইউনিয়ন পরিষদের বালুখালী বাজারস্থ পূর্বপাড়া এলাকার ফজলুল হকের ছেলে। তিনি বেসরকারি টেলিভিশন বাংলাটিভির কক্সবাজার প্রতিনিধি আমিনুল হক আমিনের ছোট ভাই।

র‍্যাব কর্মকর্তা এএসপি মো. আবু সালাম চৌধুরী জানায়, পাচারের উদ্দেশ্যে ইয়াবা মজুদের খবর পেয়ে অভিযান চালায় র্যাব। অভিযান টের পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে তার ২-৩জন সহযোগী পালিয়ে যায়। কিন্তু আটক হন জিয়াউল হক। জিজ্ঞাসাবাদে আটক জিয়াউল পলাতক সহযোগীদের মাধ্যমে দীর্ঘদিন ধরে মাদক পাচার করে আসছেন বলে স্বীকার করেছেন।

উখিয়া থানার ওসি (তদন্ত) গাজি সালাহউদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, র‍্যাবের হাতে আটক জিয়াউল হককে ইয়াবাসহ থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। মামলা প্রক্রিয়াধীন।

পালংখালী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এম. গফুর উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ২০০৮ সাল হতে পালংখালী ইউপির তথ্য সেবা উদ্যোক্তা হিসেবে কাজ করছে জিয়াউল হক বাপ্পী। তার মাদক সংশ্লিষ্টতার বিষয়টি খুবই দু:খজনক।

এদিকে, স্থানীয় একটি সূত্র জানিয়েছে, আটক জিয়াউল হকের মাদক সিন্ডিকেট চক্রটি কক্সবাজার শহরের কলাতলীর হোটেল-মোটেল জোনের সুগন্ধাপয়েন্ট এলাকার ‌একটি গেস্ট হাউসকে আস্তানা হিসেবে ব্যবহার করে আসছে। সেখান থেকেও ইয়াবা উদ্ধারের ঘটনা রয়েছে। সেই গেস্ট হাউসটির ব্যবস্থাপক, পরিচালকসহ বেশ কয়েকজনকে ইয়াবাসহ তাড়িয়েছিলো শৃংখলা বাহিনী। একজন আটক হলেও আরেকজন পালিয়ে একটি প্রেসক্লাব এলাকায় ঢুকে আত্মরক্ষা করে বলে প্রচার রয়েছে। সেই সিন্ডিকেটটি প্রশাসন থেকে নিজেদের নিরাপদ রাখতে জেলা শহর থেকে প্রকাশিত একটি দৈনিক পত্রিকাটি সম্প্রতি ভাড়ায় চালাচ্ছে।