ঢাকা, সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১

পাগল সেজে পুরোপুরি নগ্ন হয়ে ২০ বছর ধরে চুরি, আটক-৪

প্রকাশ: ২০২১-১১-১৬ ১২:৪৬:৩১ || আপডেট: ২০২১-১১-১৬ ১৩:০০:৫২

 

সিএসবি টুয়েন্টিফোর :
রাতের অন্ধকারে চুরির সময় প্রত্যেকেই থাকে পুরোপুরি নগ্ন। গায়ে মেখে নেয় তেল, যাতে গ্রিল কেটে ঢুকতে সুবিধা হয়। নগ্ন বেশে দেখে লোকে দেখলেও যাতে পাগল ভেবে সন্দেহও করে না।

অভিনব কায়দায় রাজধানীর গুলশানের ব্র্যাক আইটি সার্ভিস অফিসে চুরির ঘটনা ঘটিয়েছে একটি চক্র। সিঁধেল এই চোর চক্রের সদস্যরা রাতের বেলা পাগল সেজে চুরি করে। কিন্তু দিনের বেলায় বনে যায় মোটর শ্রমিক।

নগ্ন হয়ে এই চুরির দৃশ্য ধরা পড়েছে ব্র্যাক আইটি সার্ভিস অফিসের সিসি ক্যামেরার ফুটেজে। আর তা দেখে গত রবিবার ময়মনসিংহ ও গাজীপুর এলাকা থেকে চক্রের ৪ জনকে গ্রেপ্তার করেছে গুলশান থানা পুলিশ।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলো নুরু জামাল, আসলাম জমাদার, রফিকুল ইসলাম ওরফে রউফ ও খোকন মল্লিক। এ সময় তাদের কাছ থেকে ব্র্যাক আইটি থেকে চুরি যাওয়া ৩২টি ল্যাপটপের মধ্যে ১২টি উদ্ধার করা হয়।

ডিএমপির গুলশান বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার আসাদুজ্জামান বলেন, পেশাদার এই সিঁধেল চোর চক্র গত ২০ বছর ধরে গুলশান, বনানী, গাজীপুরের গাছা ও টঙ্গীর পশ্চিম থানা এলাকায় চুরি করে। এর বাইরে তাদের আর কোনো বৈধ পেশা নেই। গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৪টার দিকে ব্র্যাক আইটি সার্ভিস সেন্টারের ল্যাবের জানালার গ্রিল কেটে তারা বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ৩২টি ল্যাপটপ চুরি করে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় গুলশান থানায় মামলা হয়।

ওই অফিসের সিসি ক্যামেরার ফুটেজে দেখা যায়, ঘটনার সময় রাত ৪টা ১১ মিনিটে এক চোর সম্পূর্ণ নগ্ন হয়ে গ্রিল কেটে ল্যাবে প্রবেশ করে। পরে সে চুরি করা ল্যাপটপগুলো জানালার ভাঙা অংশ দিয়ে তার সহযোগীকে দেয়। পরে ব্র্যাক আইটিসহ ঘটনাস্থলের আশপাশের সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখেও এই চোরদের অবস্থান শনাক্ত করে পুলিশ।

জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তার নুরু জামাল জানায়, সে প্রায় ২০ বছর ধরে নিখুঁত পরিকল্পনার মাধ্যমে চুরি করে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ঘটনাস্থলে প্রবেশ এবং দ্রত পালানোর সুবিধার্থে তারা নগ্ন হয়ে নেয়। বিশ্বস্ত হওয়ায় সহযোগী হিসেবে সে রফিকুল এবং আসলামকে সঙ্গে রাখে। রাজধানীর মহাখালী, বনানী এবং নিকেতন এলাকায় তাদের চুরির হাতেখড়ি। ১২ বছর আগে মহাখালী ছেড়ে তারা গাজীপুর বোর্ডবাজার এলাকায় বসবাস শুরু করে। সেখানে সপরিবারে বসবাস করলেও তারা গুলশান, বনানী, গাজীপুরের গাছা এবং টঙ্গী পশ্চিম থানা এলাকায় জীবিকা নির্বাহ করে চুরি করে। চক্রের অন্য সদস্যদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে বলেও জানায় পুলিশ।