ঢাকা, সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১

নওগাঁয় শিমের বাম্পার ফলন, ভালো দাম পেয়ে কৃষকের মুখে হাসি

প্রকাশ: ২০২১-১১-০৬ ২০:৪৩:৩৯ || আপডেট: ২০২১-১১-০৬ ২০:৪৪:০৫

 

মো: হাবিবুর রহমান, মান্দা:

নওগাঁ জেলা জুড়ে এবারও শিমের বেশ ভালো ফলন হয়েছে। হাট-বাজারে আগাম শিম পাওয়া যাচ্ছে। গতবারের তুলনায় বেড়েছে চাষ। মৌসুমের শুরু থেকেই ভালো দামে শিম বিক্রি করে খুশি চাষিরা।

সরেজমিনে জেলার মহাদেবপুর, মান্দা, নিয়ামতপুর ও পোরশা উপজেলার বেশ কয়েকটি মাঠ ঘুরে দেখা গেছে, গাছে আগাম জাতের শিম থোকায় থোকায় ঝুলে আছে। আবার কোথাও ফুলে ফুলে ভরে গেছে শিমগাছ।

কৃষকেরা জানিয়েছেন, ভালো লাভে আগাম শিম বিক্রি করতে পেরে খুশি তাঁরা। বাজারে পাইকারিতে প্রতি কেজি শিম ১৫০ থেকে ১৭০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। শিম বিক্রি করে লাভের মুখ দেখে স্বস্তিতে কৃষক।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ কার্যালয় সূত্র জানায়, জেলায় এ বছর ৩৫০ হেক্টর জমিতে আগাম জাতের শিমের চাষ হয়েছে, যা গত বছর এই সময়ে ছিল ৩১০ হেক্টর।

এ ছাড়া সব মিলিয়ে অন্যান্য জাতের শিম এখন পর্যন্ত ৫৮০ হেক্টর জমিতে চাষ হয়েছে। আরো ৫০০ হেক্টর জমিতে শিম চাষের প্রস্তুতি চলছে। গত বছর প্রতি হেক্টরে ফলন হয়েছে ১০ থেকে ১২ মেট্রিক টন। চলতি বছর বিগত বছরের তুলনায় আরো বেশি ফলনের সম্ভাবনা রয়েছে।

শিমচাষি আলমঙ্গীর হোসেন প্রতিবেদক কে জানান, তিনি প্রায় তিন বিঘা জমিতে শিমের চাষ করেছেন। ফলন হয়েছে খুব ভালো। দাম পাচ্ছেন আশানুরূপ। সদর ভিমপুর এলাকার শিমচাষি হাবিবুর রহমান বলেন, আমার জমিতে এক বিঘায় বর্তমানে প্রতি সপ্তাহে ২০-২৫ কেজি শিম উঠছে। প্রতি কেজি শিম পাইকারি দরে ১৫০ টাকা থেকে ১৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। বাজারে শিমের পরিমাণ কম, এজন্য দামটাও বাড়িতির দিকে। নওগাঁর পাইকারি সবজি ব্যবসায়ী আনোয়ার হোসেন বলেন, বাজারে শিমের সরবরাহ চাহিদার তুলনাই কম হওয়া দাম বেশি। বর্তমানে পাইকারিতে প্রতি কেজি শিম ১৪০ থেকে ১৫৫ টাকায়া কিনছেন তিনি।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক শামছুল ওয়াদুদ বলেন, চলতি বছর আবহাওয়াা অনুকূলে থাকায়া আগাম জাতের শিমের ভালো ফলন হয়েছে। তেমন কোনো রোগবালাই নেই। এখন অল্প পরিসরে উৎপাদন শুরু হয়েছে। দামেও ভালো পাচ্ছেন। তবে ভরা মৌসুমেও কৃষকেরা ভালো দাম পাবেন বলে আশা করছি। সবজির ভালো ফলন নিশ্চিতে মাঠকর্মীরা কৃষকদের পরামর্শ দিচ্ছেন।