ঢাকা, সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১

সৌম্যের বোল্ডের পর মুশফিকের বিদায়

প্রকাশ: ২০২১-১১-০৪ ১৬:২৯:৩৯ || আপডেট: ২০২১-১১-০৪ ১৬:২৯:৩৯

স্পোর্টস ডেস্কঃ

ব্যাটে বল লেগে আঘাত করলো স্টাম্পে। লিটন দাসের আউটের মতো সৌম্য সরকারেরও একই দশা। লিটনের মতো বাঁহাতি এই ব্যাটারও বোল্ড হয়ে ফিরেছেন। জশ হ্যাজেলউডের বলে তিনি আউট হওয়ার পর আরও বড় ধাক্কা। গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের শিকার হয়ে ফিরে গেছেন মুশফিকুর রহিম।

আজ ৪ঠা নভেম্বর (বৃহস্পতিবার) দুবাই ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামে অস্ট্রেলিয়ার মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ। সুপার টুয়েলভে নিজেদের শেষ ম্যাচে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নামা বাংলাদেশের স্কোর ৩ ওভারে ৩ উইকেটে ১০ রান।

‘গোল্ডেন ডাক’ নিয়ে সাজঘরে লিটনঃ

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের শেষ ম্যাচ। অনেক সমালোচনার জবাব দেওয়ার সুযোগ ছিল লিটন দাসের। কিন্তু কীসের কী! ‘গোল্ডেন ডাক’-এর হতাশা নিয়ে মুখ নিচু করে সাজঘরে ফিরতে হলো তাকে। মিচেল স্টার্কের বলে বোল্ড হয়ে গেছেন লিটন।

টস হেরে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ, একাদশে মোস্তাফিজঃ

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সেমিফাইনালের স্বপ্ন আগেই শেষ। তাই সংযুক্ত আরব আমিরাত ও ওমানের বিশ্বকাপে শেষবার মাঠে নেমেছে বাংলাদেশ। দুবাইয়ের ম্যাচে টস হেরে ব্যাটিং পেয়েছে মাহমুদউল্লাহরা। টস জয়ী অস্ট্রেলিয়া অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

বিশ্বকাপের শেষ ম্যাচে বাংলাদেশের একাদশে একটি পরিবর্তন। বাঁহাতি স্পিনার নাসুম আহমেদকে বসিয়ে ফেরানো হয়েছে পেসার মোস্তাফিজুর রহমানকে। অস্ট্রেলিয়ার একাদশেও একটি বদল। বাদ পড়েছেন স্পিনার অ্যাস্টন অ্যাগার, ফিরেছেন অলরাউন্ডার মিচেল মার্শ।

বাংলাদেশের বিশ্বকাপ শেষ, তারপরও এই ম্যাচের গুরুত্ব আছে। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে বাংলাদেশের জয়ে হয়তো বিশ্বকাপের পয়েন্ট টেবিলে কোনও প্রভাব ফেলবে না, তবে ‘লাভ’ ঠিকই আছে। বিশ্বকাপ দিয়েই বিশ্বকাপের পথ তৈরি হতে পারে। সেটা কীভাবে? এই ম্যাচ জেতার মধ্য দিয়ে আগামী বছরের অস্ট্রেলিয়ার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে সরাসরি সুপার টুয়েলভে খেলার সুযোগ তৈরি হবে।

জিতলে র‌্যাঙ্কিংয়ে উন্নতি হওয়ার সম্ভাবনা থাকবে। কিন্তু হারলে প্রতিবারের মতো প্রাথমিক পর্বে খেলে সুপার টুয়েলভ নিশ্চিত করতে হবে বাংলাদেশকে। অন্যদিকে অস্ট্রেলিয়ার জন্য ম্যাচটি বাঁচা-মরার। সেমিফাইনালের স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখতে হলে জিততেই হবে অজিদের।

বাংলাদেশ একাদশ: নাঈম শেখ, লিটন দাস (উইকেটকিপার), সৌম্য সরকার, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ (অধিনায়ক), আফিফ হোসেন, শামীম হোসেন, শেখ মেহেদী হাসান, তাসকিন আহমেদ, মোস্তাফিজুর রহমান, শরিফুল ইসলাম।

অস্ট্রেলিয়া একাদশঃ

ডেভিড ওয়ার্নার, অ্যারন ফিঞ্চ (অধিনায়ক), মিচেল মার্শ, স্টিভেন স্মিথ, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, মার্কাস স্টোইনিস, ম্যাথু ওয়েড (উইকেটকিপার),জশ হ্যাজেলউড, প্যাট কামিন্স, মিচেল স্টার্ক, অ্যাডাম জাম্পা।