ঢাকা, শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১

কক্সবাজারে নির্বাচনী সহিংসতায় দুইজন নিহত, ৩ কেন্দ্রের ভোট গ্রহণ স্থগিত

প্রকাশ: ২০২১-০৯-২০ ১৯:১৭:৩৭ || আপডেট: ২০২১-০৯-২০ ১৯:১৭:৩৭

নিজস্ব প্রতিবেদক:
কক্সবাজারে নির্বাচনী সহিংসতায় দুইজন নিহত হয়েছে। এসময় ব্যালট ছিনতাইয়ের চেষ্টাকালে কুতবদিয়ার বড়ঘোপের ৭ নং ওয়ার্ডের ১ টি কেন্দ্র ও টেকনাফের হোয়াইক্যংয়ের ২ টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ সম্ভব হয়নি। এছাড়া মহেশখালির কুতুবজুমের দুটি কেন্দ্র ও কুতুবদিয়ার ১ টি কেন্দ্র ভোট গ্রহণ কিছুক্ষণ বন্ধ থাকার পর পূনরায় গ্রহণ করা হয়েছে জানিয়েছে নির্বাচন অফিস।

নির্বাচন অফিস ও আইনশঙ্খলা বাহিনী ও নানা সূত্রে জানা গেছে, তিনটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা বাদ দিলে বড় ধরণের কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই শেষ হয়েছে ভোট গ্রহণ। এখন ভোট গণনা চলছে।

সোমবার সকাল ১০টার দিকে কুতুবজুমের ৪ নম্বর ও ৫ নম্বর ওয়ার্ডের ভোটকেন্দ্রে গোলাগুলি ও ছুরিকাঘাতের ঘটনা আবুল কালাম নামের একজন নিহত হয়। কিছুক্ষণ বন্ধ রাখার পরে ফের ভোট গ্রহন করে সংশ্লিষ্টরা।

এদিকে বেলা সাড়ে ১২ টায় কুতুবদিয়ার বড়ঘোপ ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড়ের পিলটকাটা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে আইনশৃংখলা বাহিনীর গুলিতে আবদুল হালিম (৩৫) নামে একজন নিহত হলে সে কেন্দ্রেও ভোট গ্রহন স্থগিত রাখা হয়।

অপরদিকে টেকনাফের হোয়াইক্যং ইউনিয়নের উনছিপ্রাং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও লম্বারবিল এমদাদিয়া মাদরাসা ভোট কেন্দ্রে ব্যালট ছিনতাইয়ের কারণে ভোট গ্রহণ করা হয়নি।

এবিষয়ে কক্সবাজার জেলা নির্বাচন অফিসের উচ্চমান সহকারী মোরশেদ আলম বলেন, ‍বিচ্ছিন্ন কিছু ঘটনা ছাড়া জেলার ২ পৌরসভার ২৮ কেন্দ্র ও ১৪ ইউনিয়নের ১৩৭ টি কেন্দ্রে সুষ্ঠুভাবে ভোট গ্রহন সম্পন্ন হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, এবারের নির্বাচনে ভোটারদের উপস্থিতি ছিল দেখার মত। বৃষ্টি বাধা উপেক্ষা করেই ভোটাররা উৎসবের আমেজে ভৈাট দিয়েছে। এখন ফলাফল গননা করা হচ্ছে।

কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রফিকুল ইসলাম বলেন, বিচ্ছিন্ন দুটি ঘটনায় মহেশখালি ও কুতুবদিয়ার দুই ইউনিয়নের দুটি কেন্দ্রে দুই যুবক নিহত হয়েছে। নিহতদের মৃতদেহ কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে রয়েছে। এঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।