ঢাকা, শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১

উখিয়ায় অন্যের জমি জবর দখলের চেষ্টা দুর্বৃত্তদের, থানায় অভিযোগ

প্রকাশ: ২০২১-০৮-৩১ ০১:৩৭:২৯ || আপডেট: ২০২১-০৮-৩১ ০১:৪৭:১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥
কক্সবাজারের উখিয়ায় জোরপূর্বক অন্যের জমি জবর দখলের চেষ্টা চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। জবরদখলকারীরা সন্ত্রাসী, ডাকু প্রকৃতির তাই জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে ৩০ আগস্ট উখিয়া থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী পরিবার।

জানা গেছে, শনিবার (২৮ আগস্ট) সকাল ১১টার দিকে জালিয়াপালং ইউনিয়নের পূর্ব পাইন্যাশিয়া বড়ুয়াপাড়া এলাকার অজয় কুমার বড়ুয়া’র স্ত্রী পরমিতা বড়ুয়ার ক্রয় সূত্রে ৫ শতাংশ জমি জবর দখলের চেষ্টা করে অভিযুক্তরা। যা ১৯৯২ সালের ৫ মে উক্ত জমিটি ৫৪৬নং কবলামূলে একই এলাকার মৃত প্যারী মোহন বড়ুয়ার ছেলে সতীন্দ্র লাল বড়ুয়ার নিকট থেকে খরিদসূত্রে পরমিতা বড়ুয়া মালিক হয়ে সুপারি বাগান সৃজন শান্তিপূর্ণ ভোগদখলে রত আছি। যার সৃজিত খতিয়ান ২১৮৪ এর ৭০৯১নং দাগে চুড়ান্ত প্রচার আছে।

ঘটনার দিন জালিয়াপালং পূর্ব পাইন্যাশিয়া এলাকার মৃত বিজয় বড়ুয়া’র ছেলে সুধীর বড়ুয়া (৪৮) ও তার সৎ ভাই সবুজ বড়ুয়াসহ সংঘবদ্ধ দল একযোগে জমি দখলের চেষ্টা করে। এ সময় কেউ বাধা দিলে তাকে খুন করে লাশ গুম করা হবে বলেও প্রকাশ্যে হুমকি ধমকি দেয় বলে অভিযোগে প্রকাশ।

প্রাণভয়ে ভুক্তভোগী পরিবারের পক্ষে অভিযোগকারী সুবর্ণ বড়ুয়া জানান, অভিযুক্ত সুধীর বড়ুয়ার একজন খুনি ও মাদক মাদককারবারী। সে ইতোপূর্বে ইয়াবাসহ চট্টগ্রামে আটক হয়েছিল। তাছাড়া সে রত্নাপালংস্থ কোটবাজার উত্তর স্টেশনের বাসিন্দা প্যাচুক্রো নামে এক অটো চালককে খুন করে তার স্ত্রী মানিকপতিকে নিয়ে পালিয়ে কুতুপালং এলাকায় আশ্রয় নেয়।

অভিযুক্ত সুধীর বড়ুয়ার বিরুদ্ধে এর আগেও উখিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসারের বরাবরে পূর্ব পাইন্যাশিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষককে প্রাণনাশের হুমকি এবং খেলার মাঠ দখলের চেষ্টার অভিযোগ করেন প্রধান শিক্ষিকা অনিমা দাশ। ওই অভিযোগে তার বিরুদ্ধে ইয়াবা কারবারে সম্পৃক্ততা এবং মাদকের টাকায় বেপরোয়া আচরণের কথা উল্লেখ করা হয়।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত সুধীর বড়ুয়ার মুঠোফোনে (০১৮২৪৯৫৭৮৮৬) যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমার পিতার মৃত্যু পরবর্তী ১৫ শতক জমির জন্য আমি আদালতে মামলা করেছি। যা আমার পক্ষে এসিল্যান্ড, চেয়ারম্যান রায় দিয়েছে। এ সময় তার মাদক সংশ্লিষ্টতা ও এক ব্যক্তিকে খুনের বিষয়টি সত্য কিনা জানতে চাইলে অভিযুক্ত সুধীর বড়ুয়া ও তার ছেলে মুঠোফোনে এ প্রতিবেদককে ফোনে শাসিয়ে ব্যক্তিগত বিষয়ে জানা সাংবাদিকের কোন অধিকার নেই বলে সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন।

জালিয়াপালং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল আমিন চৌধুরী জানিয়েছেন, ইতোপূর্বে বিষয়টি মীমাংসা করা হয়। অহেতুক সুধীর বড়ুয়া গং এটা নিয়ে বেআইনী ভাবে ঝামেলা সৃষ্টির চেষ্টা করছে।

এ ব্যাপারে উখিয়া থানার ডিউটি অফিসার মীর আরিফ জানান, জমি দখলের চেষ্টার ঘটনায় লিখিত অভিযোগ করেছেন ভূক্তভোগী পরিবার। অফিসার ইনচার্জ ছুটিতে থাকায় ওসি (তদন্ত) এর বরাত দিয়ে বিষয়টি তদন্ত পূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। যদি কেউ শান্তি শৃঙ্খলা ভঙ্গের চেষ্ট করলে তাদের কঠোর ভাবে দমণ করা হবে।