ঢাকা, বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১

আওয়ামী লীগে হাইব্রিডদের কারণে কোণঠাসা ত্যাগী নেতারা

প্রকাশ: ২০২১-০৮-৩০ ০৯:০৮:১১ || আপডেট: ২০২১-০৮-৩০ ০৯:০৮:১১

নিজস্ব প্রতিবেদক:

হাইব্রিড নেতাদের পদ বিক্রি করলে দলের তৃণমূলের ত্যাগী ও প্রকৃত কর্মী হারাবে বলে মন্তব্য করলেন, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা হাজী সরফুদ্দীন আহমেদ সেন্টূ।

১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে ২৪নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের আয়োজিত রোববারের শোক সভা ও দোয়া মাহফিলের প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, দূর্দিনের কর্মীদের আজ কেউ মনে রাখেনা। টাকা দিয়ে নেতাদের পিছন পিছন ঘুরে বিএনপি জামাতের ক্যাডার বাহিনীদের দিয়ে ঘরে বসে কমিটি করার অপতৎপরতা বন্ধের জন্য সভাপতি ও সাধারন সম্পাদককে আহ্বান জানিয়েছেন। নইলে ফল ভাল হবেনা।

সাবেক ছাত্রনেতা ও আওয়ামীলীগের আন্দোলনে হাত হারানো ত্যাগী নেতা ইউসুফ জালাল বলেন, বঙ্গবন্ধুর বিশ্বস্থ সহকর্মী তৎকালীন মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি হাফেজ মূসার সুযোগ্য সন্তান সরফুদ্দিন সেন্টূ ভাইকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী মহানগর দক্ষিণের সাধারন সম্পাদক হিসেবে মনোনীত করার পর এক কুচক্রী মহল আর হতে দেয়নি। আমরা যারা রাজপথে জীবন বাজি রেখে লড়াই করেছি আওয়ামীলীগকে ক্ষমতায় আনার জন্য তারা সবাই হাইব্রিড নেতাদের জন্যই কোণঠাসা।

সভায় বক্তারা বলেন, দলে কি নেতার অভাব আছে যে আওয়ামীলীগের কর্মী সমাবেশে হামলাকারী ও কেকে বাহিনীর সদস্যদেরকে নিয়ে কমিটি গঠন করতে হবে?

বক্তারা আরও বলেন, আওয়ামীলীগের দূর্দিনের কর্মীরা যারা আওয়ামীলীগের জন্য জীবন বাজি রেখে আন্দোলন সংগ্রাম করেছিল তারা আজ কেউ পদ পায়না। লক্ষ লক্ষ আওয়ামীলীগের কর্মীরা দল থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। দলকে আজীবনের জন্য প্রতিষ্ঠিত করতে গেলে হাইব্রিড ও কাউয়া তাড়ানোর আহব্বান জানান।

২৬নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি সোহরাওয়ার্দির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন কাউন্সিলর ও ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক হাসিবুর রহমান মানিক, আব্দুর রহমান বাবলা, ঢাকা দঃ আওয়ামীলীগের তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক আনিস আহমেদ, জননেতা দেলোয়ার মিয়াভাই, গোলাম রাব্বানী বাবলু, জসিম উদ্দিন আযম সহ আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ।

আলোচনা শেষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানসহ উনার পরিবার ও আত্মীয় স্বজন যারা ১৫ আগস্ট শহীদ হন তাদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে এক দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়। পরে দুঃস্থদের মাঝে ও উপস্থিত সবাইকে খাবার বিতরন করা হয়।