ঢাকা, শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১

আর্জেন্টিনা-ব্রাজিল খেলায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন

প্রকাশ: ২০২১-০৭-১০ ২২:৩৭:০৯ || আপডেট: ২০২১-০৭-১০ ২২:৪২:০৪

ডেস্ক রিপোর্ট।। রাত পোহালেই কোপা আমেরিকার ফাইনালে লড়বে আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিল ফুটবল দল। দুই দলের খেলোয়াড়দের ফুটবল ছন্দ দেখার জন্যে যখন পুরো বিশ্ব প্রস্তত, ঠিক তখন উল্টোচিত্র বিরাজ করছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায়। ফুটবল পরাশক্তি এই দুই দলের সমর্থকদের উন্মাদনা ঠেকাতে জেলায় মোতায়েন করা হয়েছে বিপুল সংখ্যক পুলিশ। সেইসঙ্গে নিষিদ্ধ করা হয়েছে বড় পর্দায় খেলা দেখাসহ সব ধরনের বিজয় মিছিল।

শনিবার (১০ জুলাই) সকাল থেকে জেলাশহরসহ জেলাজুড়ে মাইকিং করা হচ্ছে। কঠোর লকডাইনের মধ্যে ফুটবল দেখা নিয়ে দর্শকেরা যেন সংঘর্ষে জড়িয়ে না পড়ে, সেই আহ্বান জানানো হচ্ছে মাইকে।

ফুটবল বিশ্বের বড় আসর কোপা আমেরিকার ফুটবলের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হবে ব্রাজিলে, বাংলাদেশ সময় রোববার (১১ জুলাই) ভোর ৬টা থেকে। এ নিয়ে সমর্থকরা আনন্দে মাতোয়ারা। তবে দুইদলের সমর্থকদের মধ্যে তর্কাতর্কি থেকে শুরু করে অপ্রীতিকর ঘটনাও ঘটেছে। করোনা সংক্রমণরোধে চলমান কঠোর লকডাউনের মধ্যেও গত মঙ্গলবার (৬ জুলাই) সদর উপজেলার দামচাইল বাজারে ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার সমর্থকেরা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। আহত অবস্থায় চারজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ অবস্থায় ফাইনাল খেলাকে কেন্দ্র করে দুইদলের সমর্থকদের ঠেকাতে পুলিশের পক্ষ থেকে শক্ত অবস্থান নেওয়া হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোল্লা মোহাম্মদ শাহীন জানায়, জেলার ১১৬টি বিটে আগামীকাল রোববার (১১ জুলাই) ভোর থেকে ৪৫টি ভ্রাম্যমাণ টিমসহ অন্তত এক হাজারের বেশি পুলিশ সদস্য মোতায়েন থাকবে। কেউ যেন ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটাতে না পারে, সেজন্য পুলিশকে সতর্ক থাকবে। খেলা চলাকালীন বা পরে বিজয় মিছিল, পটকাবাজি নিষিদ্ধ করা হযে়ছে। যারা এই আইন অমান্য করবে, তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার মৌড়াইল গ্রামের বাসিন্দা মোহাম্মদ বিজয় বলেন, ‘আমি ২০০০ সাল থেকে আর্জেন্টিনা দলকে সার্পোট করে আসছি। আশাকরি আগামীকাল আমার পছন্দের দল আর্জেন্টিনা জয়লাভ করবে।’ মোহাম্মদ বিজয় বলেন, খেলা নিয়ে বৈরিতা ঠিক নয়। সবাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে খেলা দেখবেন বলে আশা করেন তিনি।

এনায়েত গুল্লি ত্বহা নামে এক ব্রাজিল সমর্থক বলেন, ২০০৫ থেকে তিনি ব্রাজিলের সার্পোট করেন। ফুটবলছন্দ মানে ব্রাজিল। তাই জিতবেও ব্রাজিল। এই জেলায় দুই দলের মারামারি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এটি কোনোভাবেই ঠিক নয়। নিজেদের মধ্যে মারামারি করে ভালো কিছু অর্জন করা যায় না। তিনি সবাইকে সংযত পরিবেশে খেলা দেখার আহ্বান জানান।

ফুটবল উত্তেজনা প্রশমনের জন্যে পুলিশের উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন জেলার সচেতন মানুষ।