ঢাকা, বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১

শিগগিরই চালু হবে ইন্সটিটিউট ও পাবলিক লাইব্রেরী-সিনিয়র সচিব মো. হেলালুদ্দীন

প্রকাশ: ২০২১-০৬-১২ ১৫:৩৭:২৭ || আপডেট: ২০২১-০৬-১২ ১৫:৩৭:৫৭

 

এম.এ আজিজ রাসেল:
দীর্ঘ ১২ বছর প্রতিক্ষার পর অবশেষে আলোর মুখ দেখতে যাচ্ছে জেলার রাজনীতি এবং সংস্কৃতি চর্চার অন্যতম প্রাণকেন্দ্র কক্সবাজার ইনস্টিটিউট ও পাবলিক লাইব্রেরী। ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে অবকাঠামো নির্মাণের কাজ। তুলির আচড় ও নানা সাজ-সজ্জায় আধুনিকায়ন করা হয়েছে ঐতিহ্যবাহী শহীদ সুভাষ হল।

শনিবার (১২ জুন) কক্সবাজার ইনস্টিটিউট ও পাবলিক লাইব্রেরীর কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন করেছেন স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. হেলালুদ্দীন আহমদ। কাজের অগ্রগতি দেখে তিনি সন্তোষ প্রকাশ করেন।

পরিদর্শন শেষে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, জেলার রাজনীতি এবং সংস্কৃতি চর্চার অন্যতম প্রাণকেন্দ্র কক্সবাজার ইনস্টিটিউট ও পাবলিক লাইব্রেরী। বহু জ্ঞানী-গুণী ও বরণ্য ব্যক্তিদের স্মৃতি বিজড়িত এটি। নানা জটিলতা কাটিয়ে ঐতিহ্যবাহী এই প্রতিষ্ঠানের নির্মাণ কাজ শেষ হয়। বর্তমানে এসি স্থাপন, দৃষ্টিনন্দন সীমান প্রাচীর ও শহীদ দৌলত ময়দানের মঞ্চ স্থানান্তর, হলের বাইরে সাজ-সজ্জাসহ টুকাটুকি কিছু কাজ বাকি আছে। যা শিগগিরই শেষ হবে।

তিনি আরও বলেন, আনুষ্ঠানিকভাবে এটিমউদ্বোধন হওয়ার পর সবার জন্য উন্মুক্ত করা হবে এটি। এতে করে দীর্ঘদিন পর কক্সবাজারের রাজনৈতিক, সাংস্কৃতিক ও নাট্যকর্মীদের পদচারণায় আবারও মুখরিত হবে ঐতিহ্যবাহী এই পাবলিক লাইব্রেরী।

পরিদর্শনকালে উপস্থিত ছিলেন আশেক উল্লাহ রফিক এমপি, কানিজ ফাতেমা মোস্তাক এমপি, জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশীদ, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমদ চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পৌর মেয়র মুজিবুর রহমান, স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক শ্রাবস্তী রায়, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী হিলোল বিশ্বাস, ইনস্টিটিউট ও পাবলিক লাইব্রেরীর কার্যকরি কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট তাপস রক্ষিত, মেসার্স রয়েল কক্স এসোসিয়েটের সত্বাধিকারী আর,এ,এম ইসমাঈল ফারুক ও কক্সবাজার পৌরসভার প্রশাসনিক কর্মকর্তা খোরশেদ আলম।