ঢাকা, সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১

আলী হোছন গং এর অত্যাচারে দ্বারে দ্বারে ঘুরছে অসহায় আবুল কালাম

প্রকাশ: ২০২১-০৪-০৪ ১৮:৪০:৩২ || আপডেট: ২০২১-০৪-০৪ ১৮:৫৬:৪৩

নিজস্ব প্রতিবেদক:

উখিয়ার হলদিয়া পালং ইউনিয়নের পাগলির বিল গ্রামের হতদরিদ্র অসহায় আবুল কালাম পাশ্ববর্তী রামু উপজেলার খুনিয়াপালং দারিয়ারদিঘি এলাকার কতিপয় প্রভাবশালী আলী হোসেন গং এর নিকট নির্যাতনের শিকার হয়ে পথে বসেছে।

শনিবার বিকেলে এক জনাকীর্ণ সংবাদ সম্মেলনে ক্ষতিগ্রস্ত আবুল কালাম সাংবাদিকদের অভিযোগ করে বলেন, উখিয়া উপজেলার পাগলিরবিল মৌজা বি,এস-৪৩৭,৩৬,৮২৭,১২১০ ও ১২৬নং খতিয়ানের বি,এস ১৭৫৮ দাগের আন্দর ১.২০ শতক জমি এবং রামু উপজেলার দারিয়ারদিঘি মৌজার বি,এস-৩৬ নং, খতিয়ানের হিস্যানুসারে আট আনা অংশ, বি,এস ৪৩৭ নং খতিয়ানের অধীনস্থ সৃজিত বি,এস ৮২৭, ১২১০ ও ১২৬ নং খতিয়ানের বি,এস দাগ নং-১৭৫৮। হিস্যানুসারে আট আনা অংশ সর্বমোট ১.৩৭ একর জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল।

আবুল কালাম বলেন, পরবর্তীতে উক্ত বিরোধীয় জমিতে আমার দুর্বলতার সুযোগে প্রতিপক্ষ আলী হোছন গং আমার অজান্তে রবি টাওয়ার স্থাপনের পায়তারা শুরু করে। আমি বিষয়টি অবগত হওয়ার পর আদালতে রবি আজিয়াটা’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিও মাহতাব উদ্দীন আহমদ সহ ১৬জনকে আসামী করে কক্সবাজার সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালতে একটি মামলা দায়ের করি। মামলাটি একাধিকবার সার্ভেয়ার দিয়ে পরিমাপ করা হলেও সত্য রিপোর্ট দেওয়া-না দেওয়া নিয়ে চলছে গড়িমসি। প্রতিপক্ষ প্রভাবশালীর পক্ষে রিপোর্ট দেওয়ার জন্য মোটা অংকের টাকা নিয়ে তদবির করছে আলী হোছন গং।

আমি একজন নিরপেক্ষ সার্ভেয়ার দেওয়ার জন্য প্রশাসন, পুলিশ এবং সরকারের কাছে জোর দাবি করছি।

সাংবাদিকদের আবুল কালাম বলেন, আমি জমির মালিক হিসেবে জমি দাবি করিলে জায়গার স্বাদ মিটিয়ে দিবে বলে প্রতিপক্ষ সন্ত্রাসীরা প্রতি-নিয়ত হুমকি-ধমকি দিয়ে আসছে। তাই আমি ভবিষ্যত নিরাপত্তা, জায়গা উদ্ধার ও ন্যায় বিচারের স্বার্থে বিবাদীদের বিরুদ্ধে অধিকতর তদন্ত পূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানাচ্ছি।