ঢাকা, শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১

চট্টগ্রামে বিশ্ব ভোক্তা অধিকার দিবস ২০২১ পালিত

প্রকাশ: ২০২১-০৩-১৬ ০৮:১৬:১৮ || আপডেট: ২০২১-০৩-১৬ ০৮:১৬:১৮

প্রেস বিজ্ঞপ্তি : চট্টগ্রাম জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর ও ক্যাব এর আয়োজেনে বিশ্ব ভোক্তা অধিকার দিবস উদযাপন উপলক্ষে আলোচনা সভা ও ট্রাক র‌্যালী অনিুষ্ঠত হয়।

দিবসের প্রতিপাদ্য বিষয় হলো মুজিব বর্ষের শপথ নিন প্লাসিক দূষণ রোধ করি।

চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমানের সভাপতিত্বে চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজ সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত  আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) চট্টগ্রাম খন্দকার জহিরুল ইসলাম, বিশেষ অতিথি ছিলেন  বাংলাদেশ পুলিশ চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি মোঃ আনোয়ার হোসেন বিপিএম(বার), পিপিএম (বার), বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষ বাহিনীর উপ-মহাপরিচালক মোঃ শাহাবুদ্দিন, দি চট্টগ্রাম চেম্বার অব কর্র্মাস অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ এর প্রেসিডেন্ট মাহবুবুল আলম এবং কনজ্যুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব) চট্টগ্রামের প্রেসিডেন্ট এস এম নাজের হোসাইন, বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনী, ১৫ আনসার ব্যাটেলিয়ানের পরিচালক এস এম আজিম উদ্দীন। প্রতিপাদ্য বিষয়ের উপর মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব ফরেস্ট্রি অ্যান্ড এনভায়রনমেন্ট সাইন্সেস এর অধ্যাপক ডঃ খালেদ মিসবাহউজ্জমান। ক্যাব চট্টগ্রামের সাধারন সম্পাদক ইকবাল বাহার ছাবেরীর সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন জাতীয় ভোক্তা সংরক্ষন অধিদপ্তরের বিভাগীয় উপ-পরিচালক মোঃ ফয়েজ উল্যাহ।

আলোচনায় অংশনেন চেম্বারের সাবেক সভাপতি মাহফুজুল হক শাহ, রেস্তোরা মালিক সমিতির সভাপতি ইলিয়াছ ভুইয়া, রাজনীতিবিদ মৃদুল চৌধুরী, বনফুল গ্রুপের জিএম আনামুল হক, কর্নফুলী বাজার সমিতির সাধারন সম্পাদক আবদুল হক, কামাল বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি খালেদ খান চৌধুরী প্রমুখ।

বক্তাগন প্লাস্টিক দূষণরোধে সরকারের পরিবেশ আইন কঠোরভাবে প্রয়োগের পাশপাশি গণসচেতনতা সৃষ্ঠির উপর গুরুত্বআরোপ করেন। এ বিষয়ে জেলা প্রশাসন, পরিবেশ অধিদপ্তর ও আইনপ্রয়োগকারী সংস্থার কঠোর নজরদারির আহবান জানান।

বক্তাগণ প্লাস্টিক দূষণকে করোনার চেয়ে ভয়াবহ উল্লেখ করে বলেন প্লাস্টিকের কারনে কর্নফুলী ড্রেজিং করা যাচ্ছে না। একটু বৃষ্টি হলেই চট্টগ্রাম নগরী পানিতে থলিয়ে যাচ্ছ। পরিবেশ বিপর্যয় থামানো না গেলে মানব সভ্যতা বিপন্ন হবে।তাই এখনই থামাতে হবে পলিথিনের অতি ব্যবহার। একই সাথে বিকল্প হিসাবে পাটের ব্যবহার বাড়াতে হবে এবং বজ্য ব্যবস্থাপনায় বিভিন্ন সরকারী সংস্থার সক্ষমতা বাড়াতে হবে।

সভায় আসন্ন পবিত্র রমজানে নিত্যপণ্যের মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়। অতিদ্রুত ভোগ্যপণ্যের বাজার তদারিকসহ বিকল্প বাজার তৈরীর জন্য টিসিবির র্কাযক্রম জোরদারের আহবান জানানো হয়।

ভোক্তাদের অসহায়ত্ব দূরীকরণে ভোক্তা অধিদপ্তরের সক্ষমতা বাড়ানো ও ভোক্তা সংগঠনের শক্তিশালী করা এবং ভোক্তা শিক্ষা কার্যক্রম জোরদারের আহবান জানানো হয়।