ঢাকা, বুধবার, ১৮ মে ২০২২

প্রবারণা ও কঠিন চীবরদান উপলক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ অনুদানের চেক বিতরণ

প্রকাশ: ২০২১-০১-১৬ ১২:০৮:৪৪ || আপডেট: ২০২১-০১-১৭ ০০:০১:১৭

 

প্রদীপ বড়ুয়া জয়, ঢাকা থেকে

বৌদ্ধদের শুভ প্রবারণা পূর্ণিমা ও কঠিন চীবর দান-২০২০ উপলক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ও কল্যাণ তহবিল হতে প্রদত্ত বিশেষ অনুদান চেক বিতরণ সস্পন্ন হয়েছে।

শুক্রবার বিকাল ৩টায় বাসাবো’র বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাষ্টের সভা কক্ষে ট্রাষ্টের ভাইস চেয়ারম্যান সুপ্ত ভূষণ বড়ুয়ার সভাপতিত্বে এসব চেক বিতরন করা হয়।

এসময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে রাষ্ট্রপতি কার্যালয়ের সচিব সম্পদ বড়ুয়া বলেন, দেশ এখন অসাম্প্রদায়িক চেতনার বাংলাদেশ হিসেবে বিশ্ব দরবারে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলায় ধর্মীয় মূল্যবোধ বজায় রেখে দেশে এখন প্রতিটি ধর্মের আচার অনুষ্ঠানের জন্য অবাধ সুযোগ সুবিধা দেয়া হয়েছে। ইসলাম ধর্মের যেসব প্রকল্প চলমান রয়েছে, অনুরূপ সকল ধর্মের জন্য প্রকল্প গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের সাবেক পরিচালক ডাক্তার উত্তম কুমার বড়ুয়া, ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব (উন্নয়ন) মোঃ সাখাওয়াত হোসেন, ধর্ম মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মাহাবুবুর রহমান, স্থপতি বিশ্বজিৎ বড়ূয়া, ট্রাষ্টি ডালিম কুমার বড়ুয়া।

বিশেষ অতিথি সাখাওয়াত হোসেন বলেন, সরকার বর্তমানে ধর্মীয় শিক্ষা ও ঐতিহ্যবাহী ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান গুলোকে সংরক্ষণের জন্য বিভিন্ন প্রকল্প গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে। ইসলাম ধর্মের ধর্মীয় শিক্ষার জন্য মাদ্রাসার জন্য যেমন প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে ঠিক তেমনি দেশের সকল ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান গুলোকেও অনুরূপ প্রকল্পের আওতায় এনে উন্নয়নের জন্য প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে।

তিনি বলেন, সরকার ইতোমধ্যে প্যাগোডা ভিত্তিক ধর্মীয় শিক্ষা প্রকল্পের এখন ২য় ধাপের শেষ দিকে। তাই এই প্রকল্পের মাধ্যমে দেশের ধর্মীয় শিক্ষা সার্বজনীন করার লক্ষ্যে বদ্ধপরিকর।

বিশেষ অতিথি ডাক্তার উত্তম বড়ুয়া বলেন, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অসাম্প্রদায়িক চেতনার বানী স্মরণ করে বলেন, বঙ্গবন্ধু ৭২ এর সংবিধানের মাধ্যমে দেশকে অসাম্প্রদায়িক দেশ হিসেবে বিশ্বের দরবারে প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন। ৭৫ এর পর সংবিধানকে খুছিয়ে খুছিয়ে রক্তাক্ত করার ২৬ বছর পর বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনাই এই দেশকে অসাম্প্রদায়িক দেশ হিসেবে বিশ্বের দরবারে প্রতিষ্ঠিত করতে সক্ষম হয়েছেন।

অনুষ্ঠানে স্বাগত ভাষণ প্রদান করেন ট্রাস্টের সচিব মি. জয়দত্ত বড়ুয়া এবং অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন ট্রাস্টের উপ-পরিচালক মি. শ্যামল মিত্র বড়ুয়া।

সভা শেষে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণতহবিল থেকে অনুদানের চেক বিভিন্ন প্যাগোডা বা বিহারের প্রতিনিধিদের কাছে হস্তান্তর করা হয়।