ঢাকা, বুধবার, ২৫ মে ২০২২

উখিয়া-টেকনাফের হতদরিদ্রদের টেকসই উন্নয়নে কাজ করছে ইউনাইটেড পারপাস

প্রকাশ: ২০২০-১২-২৬ ১৮:১৮:১৫ || আপডেট: ২০২০-১২-২৬ ১৯:০৫:৩৭

পলাশ বড়ুয়া:
আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা (আইওএম)র অর্থায়নে কক্সবাজারের উখিয়া এবং টেকনাফে ৩৭০০ হতদরিদ্র পরিবারের জীবিকায়নে কাজ করছে ইউনাইটেড পারপাস।

গত জানুয়ারি থেকে ১১ কোটি ৮০ লক্ষ টাকার এই প্রকল্পে ৮০ শতাংশ উপকারভোগীদের স্থায়ী জীবন মানোন্নয়নে কর্মমূখী প্রশিক্ষণের মাধ্যমে কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে সহযোগিতা করা হচ্ছে। অবশিষ্ট ২০ শতাংশ প্রকল্প ব্যবস্থাপনায় খরচ করা হচ্ছে।

শনিবার (২৬ডিসেম্বর) সকাল ১০ টায় কক্সবাজারস্থ এক অভিজাত হোটেলে Improving Community resilience Through cooperative livelihood actions (ICRA) প্রকল্প বিষয়ে কক্সবাজার, উখিয়া এবং টেকনাফে প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়া কর্মরত সাংবাদিকদের জবাবদিহিতামূলক কর্মশালায় এ কথা বলেন প্রকল্প পরিচালক সুনিল জীবন চাকমা।

প্রকল্পের প্রামাণ্যচিত্র উপস্থাপন করেন ইউনাইটেড পারপাস এর দূর্যোগ ব্যবস্হাপনা ও ইমার্জেন্সি রেসপন্স ইউনিটের প্রধান মাসুদ রানা।

এ সময় তিনি বলেন, উখিয়া উপজেলার রাজাপালং জালিয়াপালং ও পালংখালী ইউনিয়নের ৮ ওয়ার্ডে ৮০টি স্বনির্ভর দল গঠন করে ১৮৫১ পরিবার। একই ভাবে টেকনাফ উপজেলার বাহারছড়া, সাবরাং, হ্নীলা ও হোয়াইক্ষ্যং ইউনিয়নের ৭৩টি স্বনির্ভর দল গঠন করে ১৬৫৬ হতদরিদ্র পরিবারের টেকসই উন্নয়নে কাজ করছে।

এছাড়াও সেফপ্লাস প্রকল্পের আওতায় উপকারভোগী এসব নারী-পুরুষকে ব্যবসায় উদ্যোগ গ্রহণ এবং ব্যবসা পরিকল্পনা উন্নয়ন বিষয়ক প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়। পরে তাদের প্রত্যেকের ব্যাংক হিসাবে ৩৫ হাজার করে নগদ অর্থ ব্যবসা পরিচালনা করার জন্য প্রদান করা হয়েছে।

প্রদানকৃত অর্থ দিয়ে অটো রিক্সা, ফার্ণিচার, কম্পিউটার সার্ভিসিং, গরু, ছাগল পালন, ফেরির ব্যবসা, মৎস্য চাষ, ফুড প্রসেসিং, ছাগল পালন, মুদি দোকান, হস্তশিল্প, মোবাইল সার্ভিসিং, পোল্ট্রি পালন, ক্ষুদ্র ব্যবসা, সেলাই ও পোষাক তৈরি সবজি চাষ করছে।

সঞ্চালনা করেন সহকারী প্রকল্প ব্যবস্হাপক মো: শাহীনুর ইসলাম। সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ছিলেন ইউনাইটেড পারপাসের মার্কেট ডেভেলপমেন্ট এণ্ড লিংকেজ প্রজেক্ট অফিসার, আহসান নেওয়াজ।

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালে কক্সবাজারের উখিয়া-টেকনাফে বাস্তুচ্যুত হয়ে ১০ লাখের অধিক রোহিঙ্গাদের আশ্রয়ের ফলে ক্ষতিগ্রস্ত স্থানীয় জনগোষ্টির মাঝে টেকসই জীবিকা উন্নয়নে কাজ করছে ইউনাইটেড পারপাস।