ঢাকা, রোববার, ২৬ জুন ২০২২

উখিয়ায় ভুয়া ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় গর্ভবতী গাভীর মৃত্যু !

প্রকাশ: ২০২০-১১-১০ ০১:৩১:৩৩ || আপডেট: ২০২০-১১-১০ ০২:১৬:৫৭

পলাশ বড়ুয়া:
কক্সবাজারের উখিয়ায় মোস্তফা কামাল শাহীন নামে ভুয়া পশু ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় গর্ভবতী গাভীর মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্থ গাভী’র মালিক ভুঁয়া ডাক্তারের বিরুদ্ধে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা বরাবরে সোমবার বিকেলে লিখিত অভিযোগ করেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, ৬ নভেম্বর সন্ধ্যায় সাড়ে ৬টার দিকে উখিয়া উপজেলার রাজাপালং ইউনিয়নের উত্তর পুকুরিয়া এলাকার আব্দুল ছালামের ছেলে জিয়াউল হক এর গোয়াল ঘরে এ ঘটনা ঘটে।

ভুয়া পশু ডাক্তার মোস্তফা কামাল শাহীন রত্নাপালং ইউনিয়নের ভালুকিয়াপালং তুলাতলী এলাকার মৃত আবুল কাশেমের ছেলে।উখিয়ায় ভুয়া ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় গর্ভবতী গাভীর মৃত্যু !

তার সংশ্লিষ্ট বিষয়ের উপর তার কোন শিক্ষা কিংবা প্রশিক্ষণ না থাকলেও সে নিজেকে সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ওআইএসপি, এলএসপি, এসিডিআই, ভোকা এবং কুমিল্লা থেকে সার্টিফিকেট ইন এনিমেল হেলথ এন্ড প্রোডাকশন এর উচ্চতর প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত পশু চিকিৎসক পরিচয়ে কোটবাজারস্থ ভালুকিয়া সড়কে আলম ফামের্সীতে গরু-ছাগলের চিকিৎসার নামে প্রতারণা করছে সাধারণ মানুষের সাথে এমনটি অভিযোগ ভুক্তভোগীর।

গাভীর মালিক জিয়াউল হক বলেন, তার পালিত গর্ভবতী গাভীটি হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে কোটবাজারে গিয়ে পশু চিকিৎসকের খোঁজ করলে শাহীন নিজে চিকিৎসার মাধ্যমে তার গরু সুস্থ করতে পারবে বলে তার গর্ভবতী গাভীটকে উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন ইনজেকশন প্রয়োগ করে। ফি: হিসেবে ৫শ টাকা নিয়ে চলে যায়। ইনজেকশন দেয়ার কিছুক্ষণ পরপরই গাভীটি মাটিতে গড়াগড়ি করতে থাকে এবং তাৎক্ষণিক শাহীনের সাথে যোগাযোগ করা হলেও সে একেক সময় একেক কথা বলতে থাকে। পরবর্তীতে ভুঁয়া চিকিৎসক শাহীন উল্টো হুমকি দেয় এবং সন্ধ্যা ৭টার দিকে গাভীটি মারা যায়। এতে তার ৭০ হাজার টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে জিয়াউল জানায়। আগামীতে এ ধরণের অন্য কারো গবাদি পশু যেন ভুল চিকিৎসায় মারা না যায় তার জন্য আইনী ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী জানাচ্ছি।

এ ঘটনায় পশু চিকিৎসার উপর কোন প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা বা প্রশিক্ষণ আছে কিনা জানতে স্বঘোষিত পশু ডাক্তার মোস্তফা কামাল শাহীনের ব্যবহৃত ০১৮১৪১১১৩৮০, ০১৮১৮২৯২২৪৬ নাম্বারে একাধিকবার যোগাযোগ করেও রিসিভ না করায় তার বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

তবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দুইজন পশু ডাক্তার বলেন, শাহীন একজন ভুয়া পশু ডাক্তার। পশু চিকিৎসার জন্য তার কোন প্রাতিষ্ঠানিক সনদ বা অভিজ্ঞতা নেই। এভাবে সে মিথ্যা কথা বলে গ্রামের সহজ সরল লোকজনের সাথে প্রতারণা করে অর্থ হাতিয়ে নেয়। এদের কারণে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন বা প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত পশু চিকিৎসকরা নানা প্রশ্নের সম্মুখীন হচ্ছে।

এ বিষয়ে উখিয়া উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা মো: সাহাব উদ্দিন বলেন, ভুল চিকিৎসায় গর্ভবতী গাভীর মৃত্যুর খবরটি জেনেছি। এ ঘটনায় অভিযোগের ভিত্তিতে প্রতিবেদন দাখিল করা হবে। পরবর্তীতে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। একই সাথে মোস্তফা কামাল শাহীন নামে উপজেলা প্রাণী সম্পদ অধিদপ্তরের তালিকাভুক্ত কোন পশু চিকিৎসক নেই বলে তিনি জানান।

আগামীতে গ্রামের সহজ সরল মানুষের সাথে প্রতারণা করা এসব ভুঁয়া পশু চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে ভেটেনারী কাউন্সিল আইনে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করার কথাও বলেন তিনি ।