ঢাকা, সোমবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২২

রোহিঙ্গাদের ভোটাধিকার ছাড়া মিয়ানমারের নির্বাচন আজ

প্রকাশ: ২০২০-১১-০৮ ০৩:৪০:২৯ || আপডেট: ২০২০-১১-০৮ ০৩:৫৪:৪২

সিএসবি২৪ ডেস্ক:
মিয়ানমারের ৫০ বছরের সামরিক শাসনের অবসানের পর দ্বিতীয় সাধারণ নির্বাচন আজ। তবে এবারও রাখাইনের রোহিঙ্গারা ভোটাধিকার প্রয়োগের সুযোগ পাচ্ছেন না।

দেশটির সাধারণ নির্বাচনে অং সান সু চির এনএলডি পার্টির বিপরীতে প্রধান বিরোধী দল ইউএসডিপি।

নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে ৯৩টি রাজনৈতিক দল। আলোচনায় রয়েছে ক্ষমতাসীন এনএলডি এবং প্রধান বিরোধী দল ইউএসডিপি আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দুতে।

গণমাধ্যমের পূর্বাভাস বলছে, আবারও সংখ্যাগরিষ্ঠ ভোটে ক্ষমতায় আসার সম্ভাবনা অং সান সু চি’র দল। তবে নির্বাচনী প্রচারণায় করোনা শিষ্টাচার না মেনে ব্যাপক সমালোচিত হয়েছে দলটি।

এ ছাড়া সংঘাতপ্রবণ রাখাইন-শান-কাচিন-মন ও বাগো এলাকায় বাতিল করা হয়েছে ভোটগ্রহণ। এতে ভোটাধিকার প্রয়োগে বঞ্চিত হচ্ছেন ১৫ লাখ মানুষ। সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত রাখাইনের সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী। এবারের নির্বাচনে সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা ও রাখাইন

জনগোষ্ঠীকে অংশগ্রহণ করতে না দেওয়ায় তাদের রাজনৈতিক অধিকার লঙ্ঘন উল্লেখ করে উদ্বেগ জানিয়েছে জাতিসংঘ। নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, রাখাইন রাজ্যসহ ৫৬টি শহরে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে না।

মিয়ানমার সামরিকতন্ত্রের পথ থেকে বাঁক বদল করে গণতন্ত্রের দিকে নতুন যাত্রা শুরু করেছিল ২০১০ সালের নভেম্বরে। ওই বছরেই দীর্ঘ বন্দিত্ব শেষে মুক্তি দেওয়া হয়েছিল গণতন্ত্রপন্থি হিসেবে পরিচিত হয়ে ওঠা নেত্রী অং সান সু চিকে। তবে ২০১৫ সালের নির্বাচনে বড় বিজয়ের পর সু চির শাসনামলে রোহিঙ্গা গণহত্যার অভিযোগ উঠেছে। যার ফলে সেই অত্যাচার, নির্যাতন থেকে প্রাণে বাঁচতে বাংলাদেশে পালিয়ে আসে ১১ লাখের বেশি রোহিঙ্গা। বিশাল এ রোহিঙ্গা জনগোষ্টি এরপর থেকে কক্সবাজারের উখিয়া-টেকনাফে ৩৪টি ক্যাম্পে অবস্থান করছে।