ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২০ জানুয়ারী ২০২২

পুষ্টিহীনতা দূর করতে `সাজনা’র বিকল্প নেই

প্রকাশ: ২০২০-০৮-২২ ১৮:৫৩:২২ || আপডেট: ২০২০-০৮-২২ ১৮:৫৫:৫৮

সিএসবি২৪ ডেস্ক:
আগে গ্রামের প্রতি বাড়িতে সাজনা গাছ থাকতো। মায়েরা দারুন সব রান্না (প্যালকা, ভর্তা, ডাটা, তরকারি) করে নিজের অজান্তে আমাদের পুষ্টির ঘাটতি মেটাতেন।

এদিকে পুষ্টিহীনতা দূর করতে সাজনাকে মডেল হিসেবে গ্রহণ করেছে বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা। বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচী (ডাব্লিউএফপি) এর আওতায় সাজনা পাতা গুড়ো করে হতদরিদ্র পরিবারের মাঝে নিয়মিত বিতরণ করা হয়।

আসুন আমরা আবারো প্রতি বাড়িতে সাজনা গাছ রোপন করে পুষ্টির ঘাটতি পূরণ করি,সুস্থ প্রজন্ম উপহার দেই।

১) সজিনা পাতায় কমলা লেবুর তুলনায় ৭ গুণ ভিটামিন-সি রয়েছে।

২) দুধের তুলনায় ৪ গুণ ক্যালসিয়াম এবং দুই গুণ আমিষ রয়েছে।

৩) গাজরের তুলনায় ৪ গুণ ভিটামিন-এ পাওয়া যায়।

৪) কলার চেয়ে ৩ গুণ পটাশিয়াম বিদ্যমান।

৫) সজিনার পাতা হৃদরোগীদের জন্যে ঠিক ওষুধের মত কাজ করে, উচ্চ রক্তচাপ কমায়, কোলেস্টেরল কমায়, ডায়বেটিস নিয়ন্ত্রিত রাখে।

৬) এক টেবিল চামচ শুকনা সজিনা পাতার গুঁড়া থেকে ১-২ বছর বয়সী শিশুদের অত্যবশ্যকীয় ১৪% আমিষ, ৪০% ক্যালসিয়াম ও ২৩% লৌহ ও ভিটামিন-এ সরবরাহ হয়ে থাকে।

৭) দৈনিক ৬ চামচ সজনে পাতার গুঁড়া একটি গর্ভবর্তী বা স্তন্যদাত্রী মায়ের চাহিদার সবটুকু ক্যালসিয়াম ও আয়রন সরবরাহ করতে সক্ষম।

৮) সাজনা পাতা বহুমূত্র রোগের জন্যে অনেক উপকারী।

৯) সাজনা ডাটা থেকে সজিনার পাতা অধিক উপকারী।

১০) এলার্জি জনিত সমস্যা হলে সজিনার পাতা বেটে আক্রান্ত স্থানে প্রলেপ দিলে অনেক উপকার পাওয়া যায়।

১১) প্রতিদিন সকালে এক চামচ শুকনা গুড়া পানিতে গুলিয়ে খেলে পেটের প্রদাহ, গ্যাস্ট্রিক মুক্তি পাওয়া যায়।

১২) গেটেবাত এর জন্যে সজিনা পাতা বেটে হাটুতে বা যে স্থানে ব্যাথা হয় লাগিয়ে রাখলে ব্যাথা মুক্তি পাওয়া যায়।

১৩) সাজনা ফুল এ ও অনেক উপকার আছে যেমন : হজম শক্তি বাড়ায়, কোষ্ট কাঠিন্য দূর করে ইত্যাদি।

১৪) সাজনা পাতা পোকার কামড়ের তাতক্ষনাৎ এন্টিসেপ্টিক হিসেবে অনেজ ভালো কাজ করে। সজিনার পাতা ক্রিমিনাশক হিসেবে কাজ করে। ক্রিমি সমস্যা করলে সজিনা পাতা গুড়ো করে অথবা অন্য খাবারের সাথে খান। সাজনা পাতা পানিকে আর্সেনিক মুক্ত করে।

১৫) সাজনা শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়, শরীর কে কর্মঠ রাখে। হাড় এর ক্ষমতা বৃদ্ধি করে যা আত্মরক্ষার ও ভূমিকা পালন করে।

১৬) সাজনা পাতা যকৃত ও কিডনির কাজ সুষ্ঠু ভাবে সম্পন্ন করতে সাহায্য করে। রোগ প্রতিরোধ করে কিডনি ও লিভার সুস্থ রাখে।

১৭) সাজনা পাতা গর্ভবস্থায় মায়ের শরীর সুস্থ রাখতে সাহায্য করে এবং মায়ের বুকের দুধ বৃদ্ধি করে কোনো ধরনের পার্শ প্রতিক্রিয়া ছাড়া।

১৮) শরীরের ওজন কমাতে অনেক সাহায্য করে। ব্যায়াম এর পাশাপাশি সজিনা পাতা খান।

১৯) ডাক্তার ও বিশেষজ্ঞ দের মতে সজিনা পাতা ও ডাটা প্রায় ৩০০+ রোগের জন্যে উপকারী ও রোগ নিরাময় করে।

২০) সাজনা পাতা বাচ্চাদের পেট পরিষ্কার রাখে।

২১) সাজনা পাতা চামড়া ও চুলের জন্যে ও ভালো।

** ত্বক এর জন্যে :
২২) মধুর সাথে সাজনা পাতার রস বা শুকনো গুড়া মিশিয়ে মুখে লাগানে পারেন। এতে মুখের চামড়া টান টান হয়, পরিষ্কার হয় ব্রণ দূর হয়।

২৩) ত্বক এর ক্ষতস্থান এর মধ্যে লাগাতে পারেন পাতা বেটে বা গুড়া পেস্ট করে। সজনে পাতা ত্বক এর মধ্যে ক্ষত থাকলে তা ও সারায়।

২৪) চুলের জন্যে :
সাজনা পাতার রস বা শুকনা গুড়া পেস্ট করে সাথে মধু মিক্স করে বা এমনি মাথায় দিয়ে ম্যাসাজ করুন। এতে চুল পড়া কমবে। মাথার ত্বক পুষ্টি গুণ পাবে। মাথা ঠান্ডা থাকবে। চুল সুন্দর ও ঘন হবে।