ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৮ জুন ২০২২

বই বিক্রয়ের জন্য ‘বুদ্ধ’ সম্পর্কে বাতিঘরের বিকৃত প্রচারণা, সর্বত্র নিন্দা

প্রকাশ: ২০২০-০৮-১০ ১০:২৮:৩১ || আপডেট: ২০২০-০৮-১০ ১০:২৮:৩১

সিএসবি২৪ রিপোর্ট:
বাতিঘরের মতো একটি প্রতিষ্টান মহামানব গৌতম বুদ্ধের জীবনকে বিকৃত রূপে উপস্থাপন করে বই বিক্রয়ের জন্য এ ধরণের বিকৃত পোষ্ট দিবেন চিন্তা করতে পারিনি।

এইরূপ নিন্দনীয় আচরণের জন্য তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

ধর্মীয় বিদ্বেষপূর্ণ বইটি নিষিদ্ধ ঘোষণা হোক এবং লেখকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্হা গ্রহণের দাবী জানাই।

জাগ্রত হোক সভ্য সমাজ…

১০ আগস্ট সকালে বাংলাদেশ ভিক্ষু মহাসভার মহাসচিব এস. লোকজিৎ ভিক্ষ উপরোক্ত কথাগুলো সামাজিক যোগাযোগে তাঁর ব্যক্তিগত আইডিতে লিখেছেন।

এরপরই তীব্র নিন্দা ও বইটি নিষিদ্ধ করার জন্য সর্বত্র প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে।

শাসন রক্ষিত নামে একজন তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে লিখেছেন, বৌদ্ধদের মধ্যে কি কোন উকিল নেই লেখকের বিরুদ্ধে আইনেরর আশ্রয় নেওয়ার? বিক্রি বন্ধ বলেন, প্রত্যাহার বা নিষেধ বলেন এসব করতে দ্রুত আইনী প্রক্রিয়ায় যেতে হবে। অভিজ্ঞ উকিলের সাথে পরামর্শ করে বৌদ্ধ উকিলদের মাধ্যমে জেলা উপজেলায় লেখক-প্রকাশক এর জন্য আইনী ব্যবস্থা গ্রহন করা হোক।

সম্যক নীলপদ্ম লিখেছেন, বৌদ্ধদের নির্লিপ্ততা ওদেরকে দুঃসাহসী করে তুলেছে। ওদের কথা হচ্ছে, আমার ধর্ম কিংবা আমার ধর্মগুরুকে অবমাননা করা হয় এমন কোন কিছু করা যাবেনা। যদি করা হয় তবে তার/তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে!

কিন্তু তোমাদের ধর্ম কিংবা ধর্মগুরুদের নিয়ে গাঁজাখুরি প্রলাপ করার কিংবা লেখালেখি করার সম্পূর্ণ স্বাধীনতা আমার/আমাদের নৈতিক অধিকার…!!!

জ্যোতি কল্যাণ লিখেছেন, বাতিঘরে বাতি নাই, সব অন্ধকার।

বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খৃষ্টান ঐক্য পরিষদের উখিয়া শাখার সভাপতি শিক্ষক মেধু কুমার বড়ুয়া লিখেছেন, অতিসত্ত্বর বইটি নিষিদ্ধ করা হউক।

জয়দ্বীপ নামে একজন লিখেছেন, Du muthi anner jonno lok koto niche namte pare.competition cholche

শিল্পী তাপস কুমার বড়ুয়া লিখেছেন, বৌদ্ধদের সহনশীলতার কারণে এরা এত ঔদ্ধত্য দেখায়। বিচার দাবী করছি।

সুদর্শন প্রিয় বড়ুয়া নামে একজন লিখেছন, যে কেউ এমন কিছু লিখলেই বুদ্ধের ধর্মের বিন্দুমাত্র ক্ষতির কোন কারণ নাই। বুদ্ধ বলেন- এসো, পরখ করে দেখ। যুক্তিযুক্ত হলে গ্রহণ করতে পার। আমি অকল্পনীয় কষ্টের ফলে এ দর্শনের সন্ধান পেয়েছি। ভালো লাগলেই দুঃখ মুক্তির স্বাদ নিতে পার। কোন জোর নাই।

লেখকের জ্ঞান চক্ষুর উন্মেষ ঘটুক। মৈত্রী-করুণা-মুদিতার রসে হউক সিক্ত। কারো ধর্মে আগাত করা অনুচিত। জগতের সকল প্রাণী সুখী হউক।

তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি, নীচমনা লেখকের এহেন হীন, ঘৃন্য কর্মকান্ডের জন্য।বইটি নিষিদ্ধ সহ প্রকাশক ও লেখকের বিরুদ্ধে ধর্ম অবমাননার দায়ে আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ করার জোর দাবী জানাই সদাসয় সরকার বাহাদুরের কাছে। ছিঃ ছিঃ ছিঃ ধিক্কার লেখক নামের কলঙ্ক।

এভাবে অসংখ্য মানুষ তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছে। প্রতিবাদকারীরা সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনী পদক্ষেপসহ বাতিঘর এবং বইটি বর্জনের দাবী জানায়।