ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২

উখিয়ায় সন্দেহজনক ৩ জনের করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট নেগেটিভ

প্রকাশ: ২০২০-০৪-০৯ ১৮:৩০:৪০ || আপডেট: ২০২০-০৪-০৯ ১৯:৪৬:১০

 

নিজস্ব প্রতিবেদক:
কক্সবাজারের উখিয়ায় সন্দেহজনক ৩ জনের করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। এদের মধ্যে কোয়ারেন্টাইনে থাকা একজন ও  দুইজন সর্দি, কাশি নিয়ে হাসর্পাতালে চিকিৎসা নিতে আসা ব্যক্তি। এর আগে ইনানীতে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারান্টাইন সেন্টারে রাখা হয় নারায়ণগঞ্জ থেকে আসা তাবলিগ ফেরত ১১জন ও জালিয়াপালংয়ের চরপাড়ার আব্দু শুক্কুর।

৯ এপ্রিল বৃহস্পতিবার আব্দু শুক্কুর সহ উখিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জ্বর, সর্দি, কাশি নিয়ে ভর্তি হওয়া আরো ২জনের করোনা ভাইরাস পরীক্ষার জন্য নমূনা সংগ্রহ করে টেস্টের জন্য পাঠানো হয়, তাদের রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে বলে জানিয়েছেন উখিয়া স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ রঞ্জন বড়ুয়া।

উল্লেখ্য ৮ এপ্রিল উখিয়ার জালিয়া পালং ইউনিয়নের চরপাড়ায় আব্দু শুক্কুর নামক জনৈক ব্যক্তি এসে আশ্রয় নেয়। সে দীর্ঘদিন ধরে কক্সবাজার বৈদ্যঘোনা নামক এলাকায় বসবাস করে আসছিলেন। তার গতিবিধি ও শারীরিক অবস্থা দেখে সন্দেহ হলে স্থানীয় বাসিন্দারা প্রশাসনকে খবর দেন।

এমন খবর পেয়ে করোনা ভাইরাসের ঝুঁকি এড়াতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ নিকারুজ্জামান চৌধুরী ঘটনাস্থলে এসে আব্দু শুক্কুরকে কোয়ারান্টাইনে পাঠানো হয়।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের প. প. কর্মকর্তা ডাঃ রঞ্জন বড়ুয়া রাজন, ইনানী কোয়ারান্টাইনে থাকা ১১ জন তাবলীগ জামায়াতের সদস্য সহ ১২ জন কে রাখার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেছেন আব্দু শুক্কুরের করোনা ভাইরাসের পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ করে বৃহস্পতিবার সকালে টেস্টের জন্য পাঠানো হয়েছিল। রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। বাকী ১১ জন তাবলীগ জামায়াত ফেরত হওয়ার তাদের নমুনা টেস্ট পরীক্ষা করা হয়নি। যদি তাদের উপসর্গ দেখা যায়, তাহলে করোনার নমুনা পরীক্ষা করা হবে।

তিনি আরও জানান, বর্তমানে উখিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনা ভাইরাস পরীক্ষার পর্যাপ্ত কীট মজুদ রয়েছে।

উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নিকারুজ্জামান চৌধুরী বলেন, জালিয়াপালংয়ের চরপাড়ার থেকে বুধবার রাতে আব্দু শুক্কুর নামের এক ব্যক্তিকে উদ্ধার করে ইনানী কোয়ারান্টাইনে রাখা হয়। তার করোনা ভাইরাসের উপসর্গ থাকায় নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছিল, কিন্ত রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে।