ঢাকা, রোববার, ২৯ মে ২০২২

উখিয়ায় লকডাউনের সময় ক্রিকেট খেলা বন্ধ করতে বলায় সন্ত্রাসী হামলায় আহত-৩

প্রকাশ: ২০২০-০৩-৩০ ১১:৫৯:১৩ || আপডেট: ২০২০-০৩-৩০ ১১:৫৯:১৩

 

রফিক মাহমুদ, উখিয়া:
কক্সবাজারের উখিয়া করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে লকডাউনের সময় ক্রিকেট খেলা বন্ধ করতে বলায় তিন যুবককে চুরিকাঘাত করে রক্তাক্ত করেছে সন্ত্রাসীরা।

২৯ মার্চ রাত ৮টার দিকে উপজেলার জালিয়াপালং ইউনিয়নের সোনাইছড়ি গ্রামের উত্তর পাড়া এলাকায় এঘটনা ঘটে। ঘটনায় দুই ভাইসহ তিন জন গুরুতর আহত হয়েছে। আহতরা হলেন, সোনাইছড়ি গ্রামের ছৈয়দ আলমের পুত্র দেলোয়ার হোসাইন (৩০), মোবারক হোসাইন (২৪) ও তারেক হোসাইন (১৭) আহতদের মধ্যে মোবারক হোসাইনের অবস্থা আশংকা জনক বলে তার পরিবার নিশ্চিত করেছে।

আহতদের এলাকাবাসী উদ্ধার করে প্রথমে উখিয়া হাসপাতালে নিয়ে গেলে অবস্থা আশংকাজনক দেখে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে কতর্ব্যরত চিকিৎসক।

এলাকাবসী সূত্রে জানা গেছে সোনাইছড়ি গ্রামের আলি হোসেন এর পুত্র নুরুল আবছার প্রকাশ (সন্ত্রাসী নান্নু) করোনার এই মহামারিতে সোনাইছড়ি খেলার মাঠে একটি ক্রিকেট টুর্নামেন্টের আয়োজন করে। এই মহামারি অবস্থার মধ্যে ক্রিকেট খেলা বন্ধ রাখার জন্য একই এলাকার মোবারক হোসাইন অনুরোধ করলে তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, এক সময় নুরুল আবছার নান্নু হুমকি দিয়ে পেইজ বুকে স্ট্যাটাস দেয়। পরে মোবারক হোসেন খেলার বন্ধের দাবী জানিয়ে উখিয়া থানাকে অবহিত করে। উখিয়া থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে তৎক্ষনাৎ পদক্ষেপ নিয়ে খেলা বন্ধ করে দেয় বলে আহত দেলোয়ার জানায়।

তিনি জানান, আলী হোসেনের পুত্র নুরুল আবছার নান্নু, আহমদ শরিফ ও পিতা আলী হোসেন সহ সংঘবদ্ধ হয়ে সন্ত্রাসী কায়দায় দা, লোহার রড ও লোহার চেইন দিয়ে এলো পাতাড়ি হামলা চালিয়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে বলে অভিযোগ করেন।

এ ব্যাপারে জালিয়াপালং ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নুরুল আমিন চৌধুরী কাছে জানতে চাইলে তিনি ঘটনার সত্যতা নিম্চিত করেছেন।

এ রিপোর্ট লেখাকালীন উখিয়া থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে সংযোগ না পাওয়ায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি। তবে উক্ত ঘটনায় জড়িতের বিরুদ্ধে মামলার প্রক্রিয়া চলছে বলে সুত্রে জানা গেছে।