ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৮ জুন ২০২২

স্থায়ী সমাধান চাই

প্রকাশ: ২০১৯-০৭-২৯ ২৩:০৬:৫৯ || আপডেট: ২০১৯-০৭-২৯ ২৩:১৭:০৪

পলাশ বড়ুয়া:

কোটবাজার-উখিয়া স্টেশনে প্রতিদিন যে সিএনজি ও ব্যাটারী চালিত টমটম থেকে একেক সময় একেকজনকে ১০/- টাকা করে চাঁদা নিতে দেখা যায়। টাকা গুলো কেন নেয়া হয় ? সরকার কি তাদেরকে রাস্তা লীজ দিয়েছেন ? যদি লীজ দিয়ে থাকেন তাহলে ত রাস্তার এতো নাজুক অবস্থার সৃষ্টি হওয়ার কথা না।

যদি লাইন পরিচালনার জন্য টাকা নিয়ে থাকে, তাহলে উখিয়ার পার্কিংয়ে গাড়ী দাঁড় করিয়ে উখিয়ার যাত্রীরা হয়রানীর শিকার হয় কেন ? অনুরূপ প্রতিটি পার্কিংয়ে একই অবস্থা দৃশ্যমান !

অনেক সময় দেখা যায়, গাড়ী গুলো সারিবদ্ধ ভাবে সাজিয়ে রেখে চালকদের জমিদারী ভাব নিয়ে বসে থাকতে। কেউ জিজ্ঞেস করলে যাবে কিনা উত্তরও দেয় না নবাবজাদারা। অথচ গাড়ীর জন্য দাঁড়িয়ে থাকে অসংখ্য মানুষ। গেলেও গুণতে হয় বাড়তি টাকা। অথচ, বাড়েনি জ্বালানীর দাম । সূলভে গ্যাসও পাওয়া যাচ্ছে যত্রতত্র।

তৎমধ্যে দুরপাল্লার কোন সিএনজি বা টমটম গাড়ী ওই স্থান থেকে একজন মানুষও যদি যাত্রী হিসেবে নেয় তাহলে ওই চালকে তার জন্যও ১০টাকা দিতে হয় ! কিন্তু কেন ?

যদি কেউ ১০টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে ওই ড্রাইভারকে অশালীন গালিগালাজসহ মারধরের ঘটনা ঘটতেও দেখা যায় !

এমনিতে ১১ লাখের বেশি রোহিঙ্গার কারণে বিপন্ন হতে চলেছে এতদঞ্চলের পরিবেশ ও মানুষের জীবনমান। তার উপর বাড়তি এই যন্ত্রণা থেকে স্থায়ী সমাধান চাই।

লেখক : সম্পাদক, সিএসবি ২৪ ডটকম।