ঢাকা, বুধবার, ১৭ আগস্ট ২০২২

ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’ মোকাবেলায় কক্সবাজারে ৫৩৮টি আশ্রয় কেন্দ্র প্রস্তুত

প্রকাশ: ২০১৯-০৫-০২ ১৮:৩২:২৬ || আপডেট: ২০১৯-০৫-০২ ১৮:৩২:৪৪


নিজস্ব প্রতিবেদক: বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’ মোকাবেলায় কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২ মে) কক্সবাজার জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের শহীদ এটিএম জাফর আলম সিএসপি সম্মেলন কক্ষে এ প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়।

 
কক্সবাজারের ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক মো: আশরাফুল আফসারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় আবহাওয়া অফিস, বিদ্যুৎ অফিস, রেডক্রিসেন্ট সোসাইটি, সিভিল সার্জন, পানি উন্নয়ন বোর্ড, ফায়ার সার্ভিস, পৌরসভা, জেলা পুলিশ, সেনাবাহিনীর প্রতিনিধি, সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন সংস্থার কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। 


সভায় জানানো হয়েছে, ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’ মোকাবেলায় কক্সবাজার জেলায় ৪৩০টি ইউনিটের আওতায় ঘূর্ণিঝড় প্রস্তুতি কর্মসূচী (সিপিপির) ৬ হাজার ৪৫০ জন সদস্য প্রস্তুত রাখা হয়েছে। এছাড়াও ১ হাজার ৭শ’ জন স্বেচ্ছাসেবী প্রস্তুত রয়েছে। কক্সবাজার রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির আওতায় ১হাজার ২শ’জন লোক প্রস্তুত রাখা হয়েছে। এরমধ্যে ৭শ’জনকে রোহিঙ্গা ক্যাম্প এলাকায়, অন্যান্যদের জেলার বিভিন্ন উপকূলীয় এলাকায় মোতায়েন করা হয়েছে।

কক্সবাজার সিভিল সার্জন অফিসের পক্ষ থেকে ৮৯টি মেডিকেল টিম সহ প্রয়োজনী ওষুধ সামগ্রী প্রস্তুত রাখা হয়েছে। একই সাথে কক্সবাজার ফায়ার সার্ভিসের পক্ষ থেকে ৬টি ইউনিটের ৩৬জন কর্মকর্তার সমন্বয়ে ১৩৮জন লোক ও বিদ্যুৎ বিভাগের ৬টি টিম কাজ করবে বলে সভায় জানানো হয়েছে। পুরো জেলায় ৫৩৮টি আশ্রয় কেন্দ্র প্রস্তুত রাখা হয়েছে। এসব আশ্রয় কেন্দ্রের জন্য প্রয়োজনীয় শুকনো খাবার সহ সব ধরণের প্রস্তুতির কথা সভায় জানানো হয়।


জেলা প্রশাসক আরও জানান, ইতিমধ্যে জেলার সব উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। ওয়ার্ড ভিত্তিক কমিটি গঠন করা হয়েছে। দুর্যোগ ব্যবস্থা কমিটি গুলোকে সতর্ক রাখা হয়েছে। পাশাপাশি উখিয়া ও টেকনাফে অবস্থিত রোহিঙ্গাদের কথা বিবেচনা করে কক্সবাজার ত্রাণ ও শরণার্থী প্রত্যাবাসন কমিশনারের সাথে আলাদাভাবে জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এজন্য রোহিঙ্গা ক্যাম্পেও ঘূর্ণিঝড় মোকাবেলায় বিশেষ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।