ঢাকা, মঙ্গলবার, ৯ আগস্ট ২০২২

কেন অনুদান নিলেন জানালেন আহমেদ শরীফ

প্রকাশ: ২০১৯-০৪-২২ ২২:৫৯:০৩ || আপডেট: ২০১৯-০৪-২২ ২২:৫৯:২৫

অনলাইন ডেস্ক: ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় খল অভিনেতা উন্নত চিকিৎসার জন্য প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে অনুদান নিয়েছেন। গত ১৮ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রী তাকে ৩৫ লাখ টাকার অনুদান প্রদান করেন। অনুদানের বিষয় গণমাধ্যমে প্রকাশ পাওয়ার পর চলচ্চিত্র অঙ্গনে চলে আসছিলো মিশ্র প্রতিক্রিয়া। কেউ কেউ তার অনুদান নেওয়ার বিষয়ে তীব্র নিন্দাও জানিয়েছেন। আহমেদ শরীফের যখন অনুদান নিয়ে তীব্র বিতর্ক শুরু হয়েছে সে মুহূর্তে তিনি গণমাধ্যমে অনুদান নেওয়ার বিষয়ে মুখ খোলেন।

অনুদান গ্রহণ করা নিয়ে আহমেদ শরীফ সাংবাদিককে জানান, মূলত আমার বয়সের কারণে দীর্ঘদিনধরে অসুস্থ হয়েছি। ঠিকমতো হাঁটাচলা করতে পারছি না। ডায়াবেটিস, হাইপারটেনশন নিয়ে আমার বেশকিছু সমস্যায় পড়েছি। কিছুদিন আগে, পিত্তথলিতে পাথর ধরা পড়ার কারণে অস্ত্রোপচারও করেছি। যার জন্য উন্নত চিকিৎসা দরকার। আর এ কারণে আমি সরকারের কাছ থেকে অনুদান নিয়েছি।

আপনি তো ডেনিম গ্রুপের এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর, আবার উত্তরায় আপনার হাউজিংয়ের ব্যবসা আছে। এতকিছু থাকার পর আপনি সরকারের কাছ থেকে কেনও অনুদান নিলেন? এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, আর্থিকভাবে যদি স্বচ্ছল থাকতাম তাহলে তো আর সরকারের কাছ থেকে আমি অনুদান নিতাম না। আমার উন্নত চিকিৎসার জন্য একবারে অনেক টাকা লাগবে তাই আমি অনুদান নিয়েছি।

আহমেদ শরীফ আরও বলেন, ‘আমার বয়স এখন ৭৪ বছর। এই বয়সে কে কতটা সুস্থ থাকতে পারেন তা আপনিও ভালো জানেন।এখন আর আগের মতো কাজ করতে পারি না। দনের বেশির ভাগ সময় ঘরে শুয়ে-বসে কাটাতে হয়। চিকিৎসার অভাবে আমার স্ত্রীর চোখটাও নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। আমার একটি মেয়ে আফিয়া মোবাসসিরা মৌরি। তাদেরকে নিয়ে খুব কষ্টে দিনগুলো কাটছে আমার।’

উল্লেখ্য, আহমেদ শরীফে একজন বাংলাদেশি খল অভিনেতা । সুভাষ দত্ত পরিচালিত ‘অরুণোদয়ের অগ্নিসাক্ষী’ সিনেমার মাধ্যমে পর্দায় নায়ক হিসেবে যাত্রা শুরু করেন। এরপর ১৯৭৬ সালে দেলোওয়ার জাহান ঝন্টু পরিচালিত ‘বন্দুক’ ছবিতে অভিনয়ের মাধ্যমে প্রথম খলনায়ক এর ভূমিকায় অভিনয় করেন। প্রায় আট শতাধিক সিনেমায় অভিনয় করা এ অভিনেতা জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারসহ পেয়েছেন অসংখ্য পুরস্কার। চলচ্চিত্রে অভিনয়ের পাশাপাশি আহমেদ শরীফ টেলিভিশনের জন্য কিছু নাটক-টেলিফিল্ম পরিচালনা করেন।

তার উল্লেযোগ্য সিনেমার মধ্যে আছে, ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’, ‘ক্ষতিপূরণ,’ ‘মহানায়ক,’ ‘শাস্তি,’ ‘বাদশাসহ অসংখ্য সিনেমায় তিনি সুনাম কুড়িয়েছেন।