ঢাকা, মঙ্গলবার, ৯ আগস্ট ২০২২

রোহিঙ্গাদের মাঝে বিতরণ হচ্ছে ওজনে কম ও মানহীন চাল

প্রকাশ: ২০১৯-০৪-২১ ২০:৫০:৩৬ || আপডেট: ২০১৯-০৪-২২ ০৭:৫৪:৩৫

ক্যাম্পের চাল নিয়ে দোলাচাল

পলাশ বড়ুয়া:
কক্সবাজারের উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পের চাল নিয়ে চলছে দোলাচাল । আশ্রিত রোহিঙ্গাদের মাঝে বিতরণকৃত চালের মান ভালো নয়। বস্তা প্রতি চালে পরিমাণেও ৫ থেকে ৭ কেজি কম দেয়া হচ্ছে। ফলে প্রত্যেক পরিবারে প্রতিনিয়ত খাবার সংকট লেগে থাকে। এমনকি প্রায় সময় ছোট ছোট ছেলে-মেয়ে সহ পরিবারের সদস্যদের অর্ধাহারে দিনাতিপাত করতে হয় বলেও জানালেন ক্যাম্প-১৮ এর এফ-২২ ব্লকের নুর ইসলামের ছেলে ওসমান। একই কথা জানালেন একই ক্যাম্পের জালাল আহমদের ছেলে হাবিবুল্লাহ (৬০)।

২১ এপ্রিল লম্বাশিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে ফেরার পথে ডাম্পারভর্তি চাউল ক্যাম্পের বাইরে নিয়ে যাওয়ার দৃশ্য চোখে পড়ে। জানতে চাওয়া হলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ড্রাম্পার ড্রাইভার জানান এসব রোহিঙ্গাদেরকে বিতরণের জন্য নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। চাল গুলো নষ্ট হওয়ায় ফেরত নিয়ে যাচ্ছি। কোথায় নেওয়া হবে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব বখতিয়ার মেম্বারের চাউল বলে জানান।

রোহিঙ্গাদের মাঝে বিতরণ হচ্ছে ওজনে কম ও মানহীন চাল

বিষয়টি সম্পর্কে কুতুপালং এলাকার বখতিয়ার আহমদ মেম্বারের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি ক্যাম্পে নিযুক্ত ঠিকাদার নয়, তবে বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচীর (ডাব্লিউ এফপি)’র ফুড সেক্টরে চাউল সাপ্লাইয়ের ব্যবসা করেন। তিনি বলেন, অনেক সময় চাউলের মান একটু খারাপ হলেও ডাব্লিউ এফপি কর্তৃপক্ষ চাউল গুলো ফেরত পাঠিয়ে দেয়।

বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচীর ইমাজেন্সী কো-অর্ডিনেটরের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করে ফোন রিসিভ না করায় হয় এ প্রসঙ্গে বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

এ প্রসঙ্গে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে উখিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: নিকারুজ্জামান চৌধুরী বলেন, চাউল ক্যাম্পে নিয়ে যাওয়া যায়। ডাম্পার ভর্তি করে ফেরত নিয়ে আসার কোন সুযোগ নেই। ওজনে কম দেওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, ইতিপূর্বে ওজনে কম হলেও পরবর্তীতে সেটা ঠিক হয়ে যায়। আবার অনেক সময় ড্রাইনেসের কারণে ১-২শ গ্রাম চাল কম হতে পারে। তবে পরিমাণে এর চেয়ে বেশি হলে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে বলে জানান।