ঢাকা, বুধবার, ১৭ আগস্ট ২০২২

অধ্যক্ষ সিরাজ-উদ-দৌলার যত অপকর্ম

প্রকাশ: ২০১৯-০৪-১১ ২১:১৬:০১ || আপডেট: ২০১৯-০৪-১১ ২১:১৬:১৪

অনলাইন ডেস্ক: নুসরাতের মৃত্যুর পর মুখ খুলতে শুরু করেছেন ফেনীর সোনাগাজীর মানুষ। উঠে আসছে মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ-উদ-দৌলার নানা অতীত অপকর্মের কথা। প্রায় দেড় যুগ আগ ২০০১ সালের পহেলা জুন ফেনীর সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসায় উপাধ্যক্ষ হিসেবে যোগদান করেন সিরাজ-উদ-দৌলা। জাল অভিজ্ঞতার সনদ ব্যবহার ও ব্যবসার অভিযোগ ছিল তার বিরুদ্ধে। মাদ্রাসার ফান্ড জালিয়াতি, সমবায় সমিতির নামে মানুষের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগও উঠেছে।

গত বছর ৩রা অক্টোবর শ্রেণীকক্ষ থেকে উপবৃত্তির টাকা দেয়ার কথা বলে নিজ কার্যালয়ে ডেকে নিয়ে আলিম দ্বিতীয় বর্ষের এক ছাত্রীকে যৌন হয়রানি করে সিরাজ।

৭ অক্টোবর মাদ্রাসা কমিটিকে লিখিতভাবে বিষয়টি জানায় নাসরিনের পরিবার। কিন্তু কোনো বিচার মেলেনি।

ভুক্তভুগী ছাত্রী বলে, ‘আমার আব্বু লিখিত অভিযোগ করেছে। কিন্তু কোনো কাজ হয়নি। অন্যান্য ছাত্রীদের বলছি সাক্ষী দিতে কিন্তু ফেল করিয়ে দেয়ার ভয়ে কেউ সাক্ষী দেয়নি।’

এলাকাবাসীর একজন বলেন, ‘এই সিরাজ উদ দৌলার অনুসারীরা মামলা প্রত্যাহারের জন্য নুসরাতের পরিবারকে হুমকি দিচ্ছে।’

সিরাজের সব অপকর্মের শাস্তি হওয়া প্রয়োজন বলে মনে করেন, মাদ্রাসার সভাপতি ফেনীর ভারপ্রাপ্ত অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট পি কে এনামুল করিম।

তিনি বলেন, ‘অভিযোগগুলো কমিটি পর্যন্ত উত্থাপিত না হওয়ায় আমরা জানতে পারিনি। তবে এখন সব পেছনের বিষয়গুলো নিয়ে তদন্ত করছি আমরা।’

অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলার সিরিজ অপকর্ম রুখতে না পারলেও মাদ্রাসা কমিটির পক্ষ থেকে নুসরাতের চিকিৎসার জন্য ২ লাখ ও জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ২৫ হাজার টাকা অনুদান দেয়া হয়।