ঢাকা, বুধবার, ২৯ জুন ২০২২

কক্সবাজারে জনতা-পুলিশ সংঘর্ষে তিন পুলিশ আহত, অস্ত্র লুট

প্রকাশ: ২০১৮-১২-২৬ ২০:১৭:৫৭ || আপডেট: ২০১৮-১২-২৬ ২০:১৭:৫৭

নিজস্ব প্রতিবেদক:
কক্সবাজার সদর উপজেলার ভারুয়াখালীতে টহলকালে পুলিশের উপর হামলা চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। হামলায় ঈদগাঁও পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের দু’এসআইসহ তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। হামলায় পুলিশের একটি শর্টগান লুট করা হয়। মঙ্গলবার বিকালে ভারুয়াখালী বাজারে এ ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ-র্যাব-বিজিবিসহ শৃংখলাবাহিনী অভিযান চালিয়ে লুন্ঠিত অস্ত্র উদ্ধার ও হামলায় জড়িত সন্দেহে দু’জনকে আটক করেছে।
আহত পুলিশ সদস্যরা হলেন, এসআই দেবাশীষ সরকার, এসআই সন্দীপ চন্দ্র নাথ ও আমর্ড পুলিশের সদস্য আলতাফ। তাদেরকে রামু উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হয়।
ঈদগাঁও পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে ইনচার্জ পরিদর্শক আসাদুজ্জামান জানান, নির্বাচনী নিরাপত্তায় নিয়মিত টহলে যায় ঈদগাঁও পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের একদল পুলিশ। ভারুয়াখালী বাজার এলাকা পার হবার কালে দুর্বৃত্তদল পুলিশের উপর অকস্মাত হামলা চালায়। হামলায় নারীও অংশ নেয়। তারা পুলিশের উপর উপর্যপুরি ইট-পাটকেল ছুঁড়ে। ইট-পাটকেলের আঘাতে তদন্ত কেন্দ্রে এসআই দেবাশীষ সরকার, এসআই সন্দীপ চন্দ্র নাথ ও আমর্ড পুলিশ সদস্য আলতাফ আহত হয়েছেন। খবর পেয়ে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে তাদের উদ্ধার করে।
স্থানীয়দের দাবি, বিকেলে ভারুয়াখালীতে ধানের শীষের সমর্থনে মিছিল বের করে স্থানীয়রা। মিছিলে ইউনিয়ন যুবদল, ছাত্রদল এবং বিএনপির নেতা-কর্মী ও সমর্থকরা অংশ নেন। খবর পেয়ে মিছিলে অংশ নেয়া বিএনপি, যুব ও ছাত্রদল নেতাদের গ্রেফতারের চেষ্টা চালায় টহল পুলিশ। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে মিছিলে অংশ নেয়া লোকজন পুলিশের উপর হামলা চালায়।
কিন্তু পুলিশের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, মিছিল থেকে কাউকে গ্রেফতারের চেষ্টা করেনি পুলিশ। কোন কারণ ছাড়াই পুলিশের উপর হামলা করা হয়েছে।
তবে, নাম প্রকাশ না করার শর্তে জেলা বিএনপির এক নেতা বলেন, ঘটনায় বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের কেউ জড়িত নয়। স্থানীয় ধানের শীষ প্রেমীরা মিছিল করলেও দায়িত্বশীল কেউ তা জানে না। এমনও হতে পারে ভোটের দিন এলাকায় বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মী শূণ্য করতে মামলা দায়েরের জন্য পরিকল্পিত ভাবে ঘটানো হয়েছে হামলার ঘটনা।
কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইকবাল হোসাইন বলেন,  ঘটনার খবর পেয়ে তার নেতৃত্বে পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবিসহ শৃংখলাবাহিনীর টহল দল ঘটনাস্থলে অভিযানে যান। তল্লাশী চালিয়ে লুন্ঠিত অস্ত্র ও হামলায় জড়িত সন্দেহে দু’জনকে আটক করেছে। তারা বিএনপি বা সহযোগী সংগঠনের কোন নেতাকর্মী কিনা এখনো বলা যাচ্ছে না। সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা পর্যন্ত স্পটে থাকায় তৎক্ষণাত আটকদের নাম-ঠিকানা জানাতে পারেননি তিনি।