ঢাকা, শনিবার, ২ জুলাই ২০২২

টেকনাফে গলায় ফাঁস লাগানো দু’যুবকের মরদেহ উদ্ধার

প্রকাশ: ২০১৮-০৯-০৫ ১৩:২৭:০৪ || আপডেট: ২০১৮-০৯-০৫ ১৩:২৭:২৫

নিজস্ব প্রতিবেদক:
কেক্সবাজারের টেকনাফে পৃথক সময়ে দু’যুবক ফাঁসিতে ঝুলে আত্মহত্যা করেছে। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টায় পৌরসভা ও সকালে উপজেলার বাহারছরা ইউনিয়নে পৃথক এ আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ মরদেহগুলো উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সরকারি মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। একই দিনে দুটি আত্মহত্যার ঘটনা প্রচার পাবার পর উদ্বিগ্নতা দেখা দিয়েছে অভিভাবক মহলে। টেকনাফ থানার ওসি রনজিত বড়ুয়া এসব তথ্য জানিয়েছেন।
টেকনাফ থানা সূত্র জানায়, মঙ্গলবার (৪ সেপ্টেম্বর) রাত ৮টার দিকে টেকনাফ পৌরসভা সদরের পুরাতন পল্লান পাড়ায় ওসমান গণি ওরফে বাক্কায়া (২০) নামের এক যুবক নিজ বাড়িতে ফাঁসিতে ঝুলে আত্মহত্যা করেছেন। তিনি ঐ এলাকার মৃত মোহাম্মদ হোসেনের ছেলে।
পরিবারের সদস্যদের বরাত দিয়ে টেকনাফ থানার ওসি জানান, নিজ বাড়ীতে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পেয়ে পরিবারের সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে টেকনাফ উপজেলা হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন। খবর পেয়ে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।
অপরদিকে, একইদিন সকাল ৭টারদিকে টেকনাফ উপজেলার বাহারছড়ার নোয়াখালী পাড়ার মৃত মীর কাশেমের ছোট ছেলে  আয়াছ উল্লাহ (২৮) গাছের সাথে ঝুলে আত্মহত্যা করেছেন। তিনি ইউনিয়ন পরিষদের ৯নং ওয়ার্ড সদস্য মো. ইলিয়াছের ছোট ভাই।
মেম্বার ইলিয়াছ জানান, ১১ ভাই-বোনের মধ্যে আয়াস সবার ছোট। সামনের শীত মৌসুমে তার বিয়ে অনুষ্ঠান করার কথা পাকা করা আছে। বাড়ির শেষ বিয়ে হিসেবে ধুমধাম উৎসব করার আয়োজন চলছিল ধীরে। কিন্তু কি অভিমানে আয়াস আত্মহত্যা করলো কিছুই বুঝে উঠতে পারছিনা।
টেকনাফ থানার ওসি রনজিত বড়ুয়া জানান, গাছে ঝুলন্ত লাশ দেখতে পেয়ে পরিজনরা পুলিশকে অবহিত করে। পরে এসআই শেখ সজীব ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠায়। এবং বিকেলে ময়নাতদন্ত শেষে মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।