ঢাকা, বুধবার, ২৯ জুন ২০২২

উখিয়ায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে ১ লাখ টাকা জরিমানাসহ এক ব্যক্তির সাজা

প্রকাশ: ২০১৮-০৯-০২ ১৪:৩৩:১৮ || আপডেট: ২০১৮-০৯-০২ ১৪:৩৩:১৮

উখিয়ায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে ১ লাখ টাকা জরিমানাসহ এক ব্যক্তির সাজা
নিজস্ব প্রতিবেদক:
কক্সবাজারের উখিয়ায় ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালিয়ে লাইসেন্স বিহীন ডায়াগনষ্টিক সেন্টার, ভুয়া চিকিৎসক ও মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ রাখার অভিযোগে ১ লাখ ৩ হাজার ৭’শ টাকা জরিমানা আদায় করেছে। এ সময় জাল সার্টিফিকেট এবং অশ্লীল ভিডিও রাখার অভিযোগে এক ব্যক্তিকে এক মাসের সাজা দেয়া হয়। উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো: নিকারুজ্জামান চৌধুরীর নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

সাজাপ্রাপ্ত নুরুল আমিন উখিয়া উপজেলার বালুখালী গ্রামের আব্দুর রহমানের ছেলে। গতকাল শনিবার বিকেলে উখিয়া এবং কুতুপালং বাজারে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

মো: নিকারুজ্জামান চৌধুরী জানান, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে উখিয়ায় বিভিন্ন ডায়াগনষ্টিক সেন্টার এবং লাইসেন্স বিহীন ফার্মেসী ও ভূয়া ডাক্তারদের বিরুদ্ধে খবর প্রচারিত হয়। এসব তথ্যের সত্যতা যাচাই করে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। উখিয়ায় যে কোন অপরাধ নির্মূলে সকলের সহযোগিতা প্রত্যাশা করেন ইউএনও।

অভিযানে উখিয়া বাজারে সেঞ্চুরি ল্যাবকে লাইসেন্সের মেয়াদ উত্তীর্ণ এবং মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধ রাখার দায়ে ২০ হাজার টাকা, কুতুপালং বাজারে ডাক্তার পরিচয় চিকিৎসা করার অপরাধে মোঃ জিয়াউল হাসানকে ২৫ হাজার টাকা, লাইসেন্স বিহীন ফার্মেসী পরিচালনাকারী মিজানুর রহমানকে ২৫ হাজার টাকা, অবৈধভাবে ওষুধ মজুদ রাখার দায়ে নুরুল আমিনকে ১০ হাজার টাকা, পরিবেশ ধ্বংসকারী পলিথিন বিক্রির অপরাধে ধুরুমখালী এলাকার ফজলুর রহমানের ছেলে জাফর আলম ২০ হাজার টাকা, কাগজপত্র বিহীন গাড়ি চালানোর অভিযোগে রতœপালং এলাকার মো: আলীর ছেলে ফয়েজকে ৩ হাজার ৭’শ টাকা এবং বালুখালী এলাকায় কম্পিউটারে জাল সার্টিফিকেট এবং অশ্লীল ভিডিও রাখার দায়ে আব্দুর রহমানের ছেলে নুরুল আমিনকে এক মাসের কারাদন্ড দেয়া হয়।