ঢাকা, বুধবার, ২৯ জুন ২০২২

টেকনাফে দুর্বৃত্তের গুলিতে রোহিঙ্গা ক্যাম্প ভোলান্টিয়ার নিহত

প্রকাশ: ২০১৮-০৮-৩১ ২০:৫০:১৯ || আপডেট: ২০১৮-০৮-৩১ ২০:৫০:১৯

জেলা প্রতিনিধি, কক্সবাজার.
কক্সবাজারের টেকনাফের লেদা অনিবন্ধিত রোহিঙ্গা বস্তিতে স্থানীয় দুর্বৃত্তের গুলিতে রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ভোলান্টিয়ার এক যুবক নিহত হয়েছেন। শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে এ হত্যার ঘটনা ঘটে।
পুলিশ ঘটনাস্থল হতে মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়েছে। হত্যাকারিদের ধরতে অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ। টেকনাফ থানার ওসি রনজিত বডুয়া এসব তথ্য জানিয়েছেন।
নিহত মো. আবু ইয়াছের (২২) হ্নীলা অনিবন্ধিত লেদা রোহিঙ্গা বস্তির এফ ব্লকের ১৫৬ নম্বর রুমের বাসিন্দা মো. ইসলাম মিয়া ছেলে ও রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ঘটমান অপরাধ কর্ম রোধে আন্তর্জাতিক সংস্থা আইওএম’র সহায়তায় গঠিত স্বেচ্ছাসেবী নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য।
স্থানীয় সূত্র জানায়, হ্নীলা অনিবন্ধিত লেদা রোহিঙ্গা বস্তির এফ ব্লকের মসজিদের সামনে দাঁড়িয়ে অন্যদের সাথে কথা বলছিলেন মো.  আবু ইয়াছের। এসমন সময় স্থানীয় উত্তর আলীখালীর কালা চাঁন্দের ছেলে ছৈয়দ আলম (৩৫) ও রিদুয়ানের (৩২) নেতৃত্বে একটি দুর্বৃত্তদল ঘটনাস্থলে এসে ইয়াছেরের বুকে বন্দুক ঠেকিয়ে গুলি করে বীরদর্পে চলে যায়। হতবিহবল উপস্থিত লোকজন রক্তাক্ত অবস্থায় ইয়াছেরকে দ্রুত স্থানীয় ক্যাম্প হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
স্থানীয় রোহিঙ্গা বস্তির চেয়ারম্যান আব্দুল মোতালেব জানান, বিগত মাস ছয়েক আগে থেকে ক্যাম্প ভিত্তিক মাদক চোরাচালান, সেবন ও বখাটেদের উৎপাত বেড়ে যায়। এটি নিয়ন্ত্রণে শৃংখলা বাহিনী ও আইওএম’র সহায়তায় মাস দুয়েক আগে একটি স্বেচ্ছাসেবী বাহিনী গঠন করা হয়। যার সক্রিয় সদস্য হিসেবে ইয়াছের অপরাধ দমনে কঠোর ভাবে ভোলান্টিয়ারের কাজ করে আসছে। তার একাগ্রচিত্তে দায়িত্বপালনকে ভাল ভাবে নিতে পারেনি মাদকচক্র। তারা ক্ষুদ্ধ হয়ে শুক্রবার বিকেলে অকস্মাত ক্যাম্পে এসে বুকে ঠেকিয়ে ইয়াছেরকে গুলি করে চলে গেছে।
টেকনাফ মডেল থানার অফিসার্স ইনচার্জ রনজিত কুমার বড়ুয়া জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল গিয়ে মরদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠাো হয়েছে। হত্যাকারিরা সনাক্ত হয়েছে। তাদের ধরতে পুলিশ দল অভিযান চালাচ্ছে।