ঢাকা, শনিবার, ২ জুলাই ২০২২

উখিয়ায় সড়ক দূর্ঘটনায় হতাহতদের পরিচয় মিলেছে

প্রকাশ: ২০১৮-০৭-১৬ ১৫:৫৪:৪১ || আপডেট: ২০১৮-০৭-১৬ ১৬:৩৩:১১

উখিয়ায় সড়ক দূর্ঘটনায় হতাহতদের পরিচয় মিলেছে
নিজস্ব প্রতিবেদক:
কক্সবাজারের কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের কাছে বাঁশবোঝাই একটি ট্রাক উল্টে নারী ও শিশুসহ অটোরিকশার চার যাত্রী নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ১৪ জন। ১৬ জুলাই (সোমবার) সকাল ৯টার দিকে উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্প এবং বালুখালীর মাঝামাঝি জায়গায় মর্মান্তিক এ ঘটনা ঘটে।

উখিয়ায় সড়ক দূর্ঘটনায় হতাহতদের পরিচয় মিলেছে
এসময় সড়কে চলাচলরত টমটম, সিএনজি ও মাহিন্দ্রাসহ ৭টি ছোট যানবাহন ট্রাকের নিচে চাপা পড়ে শিশুসহ ৪ জন যাত্রী ঘটনাস্থলে মারা যায়। এসময় আহত হয়েছে আরো ১৪ জন যাত্রী। নিহতরা হলেন, বালুখালী ক্যাম্পের বাসিন্দা নুর কায়েস (২৫), একই ক্যাম্পের তসরিন (২০), তার শিশু কন্যা মোশরফা আকতার (২৭ দিন), বালুখালী পানবাজার এলাকার রোজিনা আকতার (২৬)।

আহতরা হলেন হলদিয়া পালং ইউনিয়নের হেলাল উদ্দিন (২১), টেকনাফ নাইট্যংপাড়ার ফাতেমা বেগম (২৭), বালুখালী গ্রামের হামিদুর রহমান (১৬),একই গ্রামের আনোয়ারা বেগম (২৫)সহ ১০ জন যাত্রী রেডক্রিসেন্ট হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে বলে জানা গেছে। আহত অন্যান্যদের পরিচয় জানা যায়নি।

উখিয়ায় সড়ক দূর্ঘটনায় হতাহতদের পরিচয় মিলেছে

ঘটনাস্থল ঘুরে জানা যায়, কক্সবাজার টেকনাফ সরু সড়কের উপর দিয়ে দৈনিক হাজার হাজার যানবাহন চলাচল করার কারণে সড়কের বিভিন্ন অংশে ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে সড়কের উভয় পাশে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ভারী বৃষ্টিতে ২৫ টন ওজনের বাঁশ বোঝাই একটি ট্রাক ক্যাম্পে যাওয়ার পথে বালুখালী কাষ্টমস মৈত্রী সড়ক এলাকায় বিপরীত দিক থেকে আসা যানবাহনকে সাইড দিতে গিয়ে খাদে পড়ে উল্টে যায়।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: নিকারুজ্জামান চৌধুরী এ প্রতিবেদককে জানিয়েছেন, এ ঘটনায় ৪জন ঘটনাস্থলে নিহত হয়েছে। আহতদের উদ্ধার করে বিভিন্ন হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

উখিয়ায় সড়ক দূর্ঘটনায় হতাহতদের পরিচয় মিলেছে

কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার চাইলাউ মারমা জানান, দূর্ঘটনার খবর পেয়ে সেনাবাহিনী, পুলিশ এবং দমকল বাহিনী স্থানীয়দের সহায়তায় বাঁশের নিচ থেকে ১৮ জনকে উদ্ধার করে। আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিন নারী ও এক শিশু। আহতদের কক্সবাজারে সদর হাসপাতালে ও রেড ক্রিসেন্ট হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে বলে তিনি জানান।