ঢাকা, সোমবার, ১৫ আগস্ট ২০২২

কক্সবাজারে অপহরণ চক্রের সদস্য গ্রেফতার

প্রকাশ: ২০১৮-০৭-০৭ ২১:৫৮:১৪ || আপডেট: ২০১৮-০৭-০৭ ২১:৫৮:১৪

নিজস্ব প্রতিবেদক:
কক্সসবাজারের পাহাড়ি জনপদ ঈদগাঁও-ঈদগড় ও বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির বাইশারী সড়ক এবং আশপাশের পাহাড় থেকে অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায়কারী চক্রের এক সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আটকের পর তার বাহিনীর সিরিজ অপহরণের তথ্য স্বীকার করেছেন তিনি। শুক্রবার বাইশারী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের উপ পরিদর্শক আবু মুছা বিশেষ অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করেছে।
গ্রেপ্তারকৃত তারেকুল ইসলাম ওরফে গজাইল্যার তারেক (২৪) কক্সবাজার সদরের ইসলামাবাদ ইউনিয়নের মধ্যম গজালিয়ার বেলাল হোসেনের ছেলে ও অপহরণকারী আনোয়ার ওরফে আইন্যা চক্রের সদস্য।
বাইশারী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের উপ পরিদর্শক আবু মুসা জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পাহাড়ি এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। তারেক দূর্ধর্ষ আনোয়ার ওরফে আইন্যা বাহিনীর সক্রিয় সদস্য। ঈদগড় বাইশারী সড়কে অপহরণ, রামুর গর্জনিয়ায়  ডাকাতিসহ রাবার বাগানে অপহরণের সাথে জড়িত থাকার কথা অপকটে স্বীকার করেছে তারেক।
তারেক জানায়, সর্বশেষ গত ৬ ফেব্রুয়ারী কক্সবাজারের ঈদগাঁও গজালিয়ায় বসতবাড়ি ডাকাতিরপর ৭০ বছরের বৃদ্ধ সৈয়দুল হককে অপহরণের সাথেও সে জড়িত। তার বিরুদ্ধে রামু থানা, কক্সবাজার সদর থানা, নাইক্ষ্যংছডি থানায় একাধিক ডাকাতি ও অপহরণ মিলিয়ে ডজনাধিক মামলা রয়েছে।
তারেক স্বীকারোক্তিতে অনেক গোপন তথ্য জানিয়েছে। রাতে গ্রেপ্তার তারেককে নিয়ে অস্ত্র উদ্ধার, অপহরণকারীদের আস্তানাসহ আরো অপহরণকারীদের ধরার জন্য গহীন পাহাড়ের সম্ভাব্য স্থানে অভিযান চলছে বলে জানান পুলিশ কর্মকর্তা মুছা।
উল্লেখ্য, ইতুপূর্বে অপহরণ চক্রের আরো চার সদস্য আটক হন। তাদের কারাগারে দেয়ার পর চক্রটির অপতৎপরতা কিছুদিন কমে। কিন্তু তারা সম্প্রতি আবার সক্রিয় হয়ে পুরোনো অপকর্ম আবার শুরু করেছে। তাই দিন দুপুরেও চলাচলে আতংকে সময় কাটায় পাহাড় ঘেরা এসব এলাকায় বসবাসকারী প্রায় ৫লাখ মানুষ। বিশেষ করে সবসময় তড়স্থ থাকে ব্যবসায়ী, চাকুরে ও প্রবাসী এবং তাদের পরিবার।