ঢাকা, বুধবার, ২৫ মে ২০২২

অত্যন্ত উদ্বিগ্ন হয়েই গণমাধ্যমকে ডেকেছি : ফখরুল

প্রকাশ: ২০১৮-০৫-১২ ২২:৪৮:৪১ || আপডেট: ২০১৮-০৫-১২ ২২:৪৮:৪১

অত্যন্ত উদ্বিগ্ন হয়েই গণমাধ্যমকে ডেকেছি : ফখরুল

সিএসবি ২৪ ডটকম: বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘কারাগারে খালেদা জিয়ার সর্বশেষ অবস্থা জানতে আমরা খবর নেওয়ার চেষ্টা করছি কিন্তু ব্যর্থ হয়েছি। তার শারীরিক অবস্থা কেমন সে সম্পর্কে জানতে পারছি না। অত্যন্ত উদ্বিগ্ন হয়েই গণমাধ্যমকে ডেকেছি।’

ফখরুল বলেন, ‘আমরা অবিলম্বে দা‌বি জানা‌চ্ছি যে, অন্তত তার পরিবারের সদস্যদের (খালেদা জিয়া) সঙ্গে সাক্ষাতের সুযোগ করে দেওয়া হোক।’

আজ শনিবার রাতে বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশান কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এসব কথা করেন।

এসময় কারাগারে খালেদা জিয়ার সঙ্গে পরিবারের সদস্যদের দেখা করতে না দেওয়ার অভিযোগ করে এ ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘সর্বশেষ গত ৪ মে কারাগারে খালেদা জিয়ার সঙ্গে তার স্বজনরা সাক্ষাৎ করার সুযোগ পেয়েছিলেন। এরপর থে‌কে দেখা করার আর অনুমতি পাচ্ছেন না তারা। ‌জিজ্ঞাসা করা হ‌লে কারা কর্তৃপক্ষ বলছে, নিরাপত্তাজনিত কারণে সাক্ষাৎ সম্ভব হচ্ছে না।’

বিএনপির জ্যেষ্ঠ এই নেতা বলেন, ‘প্রশ্ন হ‌চ্ছে তিনি (খা‌লেদা জিয়া) কারাগারে সরকারের নিরাপত্তার মধ্যেই আছেন। তাহ‌লে যারা সাক্ষাৎপ্রার্থী হচ্ছেন তাদের সাক্ষাৎ দিতে নিরাপত্তজনিত কারণে কেন হবে না, বুঝতে পারছি না।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘তিন মাস ধরে তিনি কারাগারে আছেন। প্রথম যখন দেখা করতে গিয়ে ছিলাম উৎফুল্ল হয়ে কথা বলেছেন। তিনি ভিজিটর রুমে এসে কথা বলেছেন। এরপর কয়েকবার গিয়েছি প্রতিবারই ভিজিটর রুমে এসে কথা বলেছেন। কিন্তু গত এক মাস ধরে তিনি ভিজিটর রুমে আসতে পারছেন না। যে কারণে আমাদের সঙ্গে সাক্ষাতের সময় দিয়েও তা বাতিল করা হয়েছে। তার শরিরের অবস্থা এত খারাপের দিকে গেছে তিনি আসতে পারছেন না।’

‌দলটির মহাসচিব ব‌লেন, ‘কারাগারে নেওয়ার পর থেকে ক্রমেই খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের অবনতি হচ্ছে। চিকিৎসার জন্য সরকার উদ্যোগ গ্রহণ করছে না। আমরা বারবার বলেছি, তার ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের দিয়ে বিশেষায়িত হাসপাতালে চিকিৎসা করার। সেটা তো করা হয়নি, উপরন্তু উদ্বেগের সঙ্গে গত কয়েকদিন ধরে লক্ষ্য করছি বেগম খালেদা জিয়াকে তার পরিবারের সঙ্গেও দেখা করতে দেওয়া হচ্ছে না। অথচ তার চিকিৎসকেরা বলেছেন সুচিকিৎসা না পে‌লে পরিণতি কি হতে পারে।’

ফখরুল বলেন, ‘তিনি প্যারালাইজড হয়ে যেতে পারেন। স্মরণশক্তি হারিয়ে ফেলতে পারেন। আরও মারাত্মক অবনতি ঘটতে পার। তারপরও কোন কারণে চিকিৎসা হচ্ছে না আমাদের বোধদয় হচ্ছে না।’

বিএনপির জ্যেষ্ঠ এই নেতা বলেন, ‘বারবার বলার পরও নির্জন কারাগারে তাকে আটকে রাখা হয়েছে। নূন্যতম সুযোগ দেওয়া হচ্ছে না। আমরা তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে সাক্ষাতের সুযোগ দেওয়ার দাবি জানাচ্ছি।’

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন- বিএন‌পির যুগ্ম মহা‌সচিব মাহবুব উ‌দ্দিন খোকন, আন্তর্জা‌তিক বিষয়ক সম্পাদক মাসুদ আহ‌মেদ তালুকদার প্রমুখ।