ঢাকা, বুধবার, ১৮ মে ২০২২

বৌদ্ধ সুরক্ষা পরিষদের উদ্যোগে প্রয়াত উ পঞ্ঞদীপা মহাথের’র উদ্দেশে সংঘদান ও অষ্টপরিষ্কারদান

প্রকাশ: ২০১৮-০৫-০৯ ১০:২৭:৫০ || আপডেট: ২০১৮-০৫-০৯ ১০:২৭:৫০

বৌদ্ধ সুরক্ষা পরিষদের উদ্যোগে প্রয়াত উ পঞ্ঞদীপা মহাথের’র উদ্দেশে সংঘদান ও অষ্টপরিষ্কারদান

বার্তা পরিবেশকঃ
রামু উপজেলার হাইটুপী উসাই-চেন রাখাইন বিহার প্রকাশ বড় ক্যাং এর অধ্যক্ষ, আবাল্য ব্রক্ষচারী প্রয়াত উ পঞ্ঞদীপা মহাথের’র উদ্দেশে সংঘদান ও অষ্টপরিষ্কারদান সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

কক্সবাজার জেলা বৌদ্ধ সুরক্ষা পরিষদ রামু উপজেলা শাখার উদ্যোগে এবং কক্সবাজার জেলা বৌদ্ধ সুরক্ষা কেন্দ্রীয় পরিষদের সার্বিক সহযোগিতায় উক্ত সংঘদান ও অষ্টপরিষ্কারদান সভা অনুষ্ঠিত হয়।

৮ মে মঙ্গলবার সকাল দশটায় রামু মৈত্রী বিহারে উক্ত দানসভা অনুষ্ঠিত হয়।

একুশে পদকপ্রাপ্ত, রামু কেন্দ্রীয় সীমা বিহারের অধ্যক্ষ, কক্সবাজার জেলা বৌদ্ধ সুরক্ষা পরিষদের প্রধান উপদেষ্টা, উপসংঘরাজ পন্ডিত সত্যপ্রিয় মহাথের’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত দানসভায় প্রধান অতিথি ছিলেন পানেরছরা রাখাইন বিহারের অধ্যক্ষ উ সুচরিত মহাথের।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন ভারতের বোম্বেস্থ অজন্তা বিহারের অধ্যক্ষ ভদন্ত ধর্মরত্ন মহাথের। প্রধান ধর্মদেশক ছিলেন চট্রগ্রাম নন্দনকানন বৌদ্ধ বিহারের আবাসিক প্রধান ভদন্ত প্রিয়রত্ন মহাথের।

ধর্মদেশক ছিলেন উত্তর মিঠাছড়ি বিমুক্তি বিদর্শন ভাবনা কেন্দ্রের অধ্যক্ষ ভদন্ত করুণাশ্রী মহাথের, লামারপাড়া বিহারের অধ্যক্ষ উ ঞাণতারা মহাথের, বাহারছড়া বিহারের অধ্যক্ষ উ প্রজ্ঞালংকার থের, রামু কেন্দ্রীয় সীমা বিহারের সহকারী পরিচালক ভদন্ত শীলপ্রিয় থের, মৈত্রী বিহারের অধ্যক্ষ ভদন্ত প্রজ্ঞাতিলোক ভিক্ষু, বড় ক্যাং এর বর্তমান দায়িত্বরত ভদন্ত পদুম ভিক্ষু প্রমূখ।

সভায় বক্তারা বলেন উ পঞ্ঞদীপা মহাথের ছিলেন অসাম্প্রদায়িক চেতনায় উজ্জীবিত সাংঘিক ব্যক্তিত্ব। তিনি কখনো স্থানীয় বড়ুয়া এবং রাখাইন সম্প্রদায়ের মধ্যে ব্যবধান রেখে চলেননি। তিনি আজীবন সবার মধ্যে সম্প্রীতি রক্ষা করে গেছেন। রামুর বৌদ্ধ সমাজ তাঁর কাছে ঋণী। কক্সবাজার জেলা বৌদ্ধ সুরক্ষা পরিষদ প্রয়াত উ পঞ্ঞদীপা মহাথের’র উদ্দেশে সংঘদান, অষ্টপরিষ্কারদান এবং স্মৃতিচারণ সভার আয়োজন করে যথার্থই করেছেন।

অনুষ্ঠানের প্রধান ধর্মদেশক চট্রগ্রাম নন্দনকানন বৌদ্ধ বিহারের আবাসিক প্রধান ভদন্ত প্রিয়রত্ন মহাথের পরিষদের ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন, আমরা কক্সবাজার জেলা বৌদ্ধ সুরক্ষা পরিষদের কার্যক্রম শুরু থেকেই পর্যবেক্ষণ করছি। এই পরিষদ সমাজের জন্য কিছু করার প্রত্যয়ে আন্তরিকভাবে চেষ্টা করে যাচ্ছেন। এই পরিষদ আরো অনেক আগে গঠিত হওয়া উচিত ছিল। কিন্তু দেরীতে হলেও তো হয়েছে। এখন সবার উচিত এই পরিষদকে সার্বিক সহযোগিতা এবং পৃষ্ঠপোষকতা দিয়ে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া।

 

সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন কক্সবাজার জেলা বৌদ্ধ সুরক্ষা পরিষদ রামু উপজেলা শাখার সভাপতি রিটন বড়ুয়া এমইউপি এবং কক্সবাজার জেলা বৌদ্ধ সুরক্ষা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অমরবিন্দু বড়ুয়া অমল। সভা পরিচালনা করেন কক্সবাজার জেলা বৌদ্ধ সুরক্ষা পরিষদের সভাপতি ভদন্ত প্রজ্ঞানন্দ ভিক্ষু।