ঢাকা, শনিবার, ২ জুলাই ২০২২

উখিয়ায় রোহিঙ্গা বস্তিতে ৩ হাজার ৩ শত পরিবারের জীবন যাপন বাঁধাগ্রস্থ

প্রকাশ: ২০১৭-০৭-১৫ ০০:০০:৫২ || আপডেট: ২০১৭-০৭-১৫ ০০:০০:৫২

গফুর মিয়া চৌধুরী, উখিয়া  :
কক্সবাজারের উখিয়ার বালুখালী নতুন রোহিঙ্গা বস্তিতে রোহিঙ্গারা চরমভাবে নানা মুখী সমস্যার সস্মুখীন হয়ে পড়েছে। এ রোহিঙ্গা বস্তিতে বসবাসরত ৩ হাজার ৩ শত পরিবারের জীবন যাপন হয়ে পড়েছে চরম বাঁধাগ্রস্থ। নেই চিকিৎসা সেবা, খাদ্যের অভাব, বাসস্থানসহ অসংখ্য সমস্যা যন্ত্রনার মধ্যদিয়ে দিনাতিপাত করলেও দেখার কেউ নেই বলে দাবী করছেন বালুখালী রোহিঙ্গা বস্তির ক্যাম্পের মাঝি জামাল হোসেন লালু।

গতকাল শুক্রবার বিকেলে বালুখালীতে নতুনভাবে গড়ে ওঠা রোহিঙ্গা ক্যাম্পে গেলে রোহিঙ্গাদের নানা মুখী সমস্যাসহ যন্ত্রনার দুর্বিহ চিত্র এ প্রতিবেদককে রোহিঙ্গারা জানান। রোহিঙ্গা রফিক(৫০), বেগম বাহার (৬০), রাবেয়া খাতুন (৬৫) আবেগ প্রবন হয়ে বলেন, এ ক্যাম্পে নানা যন্ত্রনায় রয়েছি। নেই খাদ্য, চিকিৎসা সেবা, থাকার ঘর ও অন্যদিকে বন বিভাগের লোকজনের দিন রাত হুমকি ধুমকি মারধর ও চাঁদা দাবীর বিষয়টি চরম অসহনীয় হয়ে পড়েছে। বিধবা রোহিঙ্গা নারী আলমাছ খাতুন ও জুবায়ের মাঝি অভিযোগ করে বলেছেন, উখিয়ার ঘাট বালুখালী বিট কর্মকর্তা মোবারক আলী সহ তার সাথে থাকা বন প্রহরী সাঈদ, মহসিন ও হেডম্যান নামধারী আমির হোসেন, কামাল আহমদ এরা প্রতিদিন রোহিঙ্গা ক্যাম্পে এসে আমাদের ছোট ছোট বস্তিঘর ভেঙ্গে দিচ্ছে। তাদের কথামত ঘর প্রতি ১ হাজার টাকা করে মাসিক না দিলে ক্যাম্প এলাকা ছেড়ে চলে যাওয়ার হুমকি ধমকি দিচ্ছে। এ অবস্থায় পরিবার পরিজন নিয়ে আমরা বৃষ্টিতে যাবো কোথায়?

অনেক সাধারণ রোহিঙ্গারা জানিয়েছেন, এ ক্যাম্পে প্রায় ৩/৪শ পরিবার রোহিঙ্গারা কোন ধরনের সরকারি/বেসরকারি এনজিও ও দাতা সংস্থার পক্ষ থেকে কোন ত্রাণ সামগ্রী ও সাহায্য সহযোগীতা না পাওয়ায় তারা চরমভাবে না খেয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছেন। বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্প জি-২ ব্লকের আয়ুব মাঝি বলেন, বিট কর্মকর্তা মোবারক আলী ও তার লোকজন ১৫শ পরিবারের কাছ থেকে ১ হাজার টাকা করে চাঁদা আদায় করছে। না হলে বনবিভাগের জায়গায় তাদেরকে থাকতে দেওয়া হবে না। উচ্ছেদ করে দিচ্ছি এমন অভিযোগ অসংখ্য রোহিঙ্গার। অপরদিকে এইচ ব্লকের জোবাইর মাঝি কাছ থেকে মসজিদ নির্মাণ করায় বনবিভাগের এই সেই মোবারক ৫ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন বলে সত্যাতা নিশ্চিত করেছেন খোদ জোবাইর মাঝি।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে অভিযুক্ত উখিয়ার ঘাট বালুখালী বিট কর্মকর্তা মোবারক আলী তার বিরুদ্ধে রোহিঙ্গাদের আনিত অভিযোগ সত্য নয় দাবী করে বলেন, রোহিঙ্গারা বনবিভাগের জায়গা জবর দখল করে দিন দিন বসতি স্থাপন করায় বনবিভাগের লোকজন বাঁধা দিলে তারা আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা প্রফাকান্ড ছড়াচ্ছে।