ঢাকা, শুক্রবার, ১ জুলাই ২০২২

ঈদগাঁওর বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত

প্রকাশ: ২০১৭-০৭-০৪ ১০:৪৪:২৮ || আপডেট: ২০১৭-০৭-০৪ ১০:৪৪:২৮

ঈদগাঁওর বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত

মোঃ রেজাউল করিম, ঈদগাঁও:
কয়েক দিনের ভারী বর্ষণ ও ঈদগাঁও নদীর উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলের পানিতে প্লাবিত হয়েছে বিস্তীর্ণ এলাকা। জালালাবাদ রাবারড্যাম ভেঙ্গে এর আওতাধীন কয়েকশত পরিবার কার্যত পানিবন্দী হয়ে পড়েছেন। বৃষ্টির পানিতে ঈদগাঁও বাজারের প্রধান সড়ক ডিসি রোড ও শহীদ জয়নাল আবেদীন সড়ক হাঁটু পানিতে সয়লাব হয়ে উঠেছে। রাবার ড্যামের পশ্চিমে পূর্ব লরাবাক সংলগ্ন পুরনো ভাঙ্গাটি ভেঙ্গে গিয়ে ঈদগাঁও ধমকাবিল বন্যার পানিতে একাকার হয়ে উঠেছে। জালালাবাদ ২নং ওয়ার্ড মেম্বার সাইফুল হক জানান, ভাঙ্গা অংশের পরিমান প্রায় ২ শত মিটার। যার কারণে শত শত ঘরবাড়ি জলমগ্ন হয়ে আছে। স্থানীয় চেয়ারম্যান ইমরুল হাসান রাশেদ জানান, ঈদগাঁও নদীর বেড়ীবাঁধ ভেঙ্গে জালালাবাদের পালাকাটা, পূর্ব লরাবাক, মোহনবিলাসহ ৪টি ওয়ার্ড পুরোপুরি প্লাবিত। ৫/৬ শ পরিবারের রান্না বান্না বন্ধ রয়েছে। দ্রুত সময়ে ভাঙ্গা বেড়ীবাঁধের বিহীত ব্যবস্থা না করলে ক্ষয়ক্ষতি ও দূর্ভোগ চরমে পৌঁছাবে। ঈদগাঁও বাজার ও হাটু পাানির নিচে চলে যাওয়ায় তিনি প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন। ঈদগাঁও ৭নং ওয়ার্ড তথা দরগাহ পাড়া রোডের চিকনঝিরির ব্রীজের বেহাল দশার কারণে যাতায়াতকারী লোকজনকে দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। প্রতি বর্ষাতেই এ রকম ঘটনা ঘটে। সুজিত সিহাল নামের এক যুবক জালালাবাদ ১নং ওয়ার্ডের হাইস্কুলের পিছনের দশা দেখার জন্য স্থানীয় চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন। ঈদগাহ আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় সহকারী প্রধান শিক্ষক এম. মোখতার আহমদ জানান, প্রচুর বৃষ্টিপাতের কারণে বিভিন্ন ক্লাসে পানি ঢুকে শ্রেণি কার্যক্রমের ব্যাপক ব্যাঘাত ঘটে। এদিকে বাজারের ডিসি সড়কটি কোটিরও উপর টাকা খরচ করে পুননির্মাণ করা হলেও উভয়পাশের স্বার্থান্বেষী ব্যবসায়ীদের কারণে এর সুফল থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন পুরো বাজারবাসী। এক দিকে তারা ময়লা-আবর্জনা ফেলে ড্রেনের পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থা অকেজো করে রেখেছে। অন্যদিকে যার যার দোকানের সামনের অংশ উঁচু করে ফেলায় বৃষ্টির পানি সড়কে জমে থেকে লোক ও যান চলাচলে মারাত্মক বিঘœ ঘটাচ্ছে। বাজারে আগত লোকজনের এ দূর্দশা যেন দেখার কেউ নেই। স্থানীয় জেলা পরিষদ মেম্বার, ইউপি চেয়ারম্যান বা মেম্বারদের সময়োচিত উদ্যোগ না থাকায় বাজার সংশ্লিষ্ট লোকজনকে চরম অসন্তোষ প্রকাশ করতে শোনা যাচেছ। এদিকে খবর নিয়ে জানা গেছে, কক্সবাজার পানি উন্নয়ন বোর্ডের এসডি তাজুল ইসলাম অফিস টীমসহ সোমবার ঈদগাঁও নদীর রাবারড্যাম সংলগ্ন ভাঙ্গা অংশ পরিদর্শন করে ভাঙ্গন মেরামতে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেয়ার আশ^াস দিয়েছেন।