ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৮ জুন ২০২২

কক্সবাজারে ৭৮টি পাইপ বোমা তৈরির সরঞ্জামসহ আটক-২

প্রকাশ: ২০১৭-০১-১৭ ১৮:১৭:৩২ || আপডেট: ২০১৭-০১-১৭ ১৯:৫৭:১০

কক্সবাজারে ৭৮টি পাইপ বোমা তৈরির সরঞ্জামসহ আটক-২
আবদুর রাজ্জাক,কক্সবাজার::র‌্যাব-৭,কক্সবাজার ইউনিটের সদস্যরা শহরের খুরুস্কুল রাস্তার মাথা নামক স্থানে অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমান বোমা তৈরির সরঞ্জামসহ মো. করিম উল্লাহ (৪০) ও মোহাম্মদ রমিজ (৪২) নামের দুজনকে গ্রেফতার করেছে। মঙ্গলবার (১৭ জানুয়ারী) দুপুর ১২ টা ৩০ মিনিটের সময়  র‌্যাব সদস্যরা কক্সবাজার শহরের খুরুস্কুল রাস্তার মাথা নামক স্থানে অভিযান চালিয়ে বোমা তৈরির সরঞ্জামসহ তাদের গ্রেফতার করা হয়। তাদের কাছে থেকে কিছু টাকাও উদ্ধার করা র‌্যাব সদস্যরা। গ্রেফতারকৃতরা হলেন, সদর থানার ঝিলংজা পশ্চিম মুহুরী পাড়া সরকারী কলেজের পিছনে মৃত নূরুল ইসলামের পুত্র মো: করিম উল্লাহ (৪০) ও শহরের উত্তর রুমালিয়ারছড়ার হাসেমিয়া মাদ্রাসার পার্শ্বের মৃত জাফর হোসেনের পুত্র মোহাম্মদ রমিজ (৪২)।

মঙ্গলবার (১৭ জানুয়ারী)   বিকাল সাড়ে ৪ ঘটিকার সময়  র‌্যাব-৭ কক্সবাজার কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে কোম্পানি কমান্ডার লেফটেন্যান্ট কর্নেল আশেকুর রহমান জানান, টমটম যোগে নাশকতা সৃষ্টি করার লক্ষ্যে বোমা তৈরীর সরঞ্জাম বহন করে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে এরকম সংবাদ পেয়ে মঙ্গলবার (১৭ জানুয়ারী) দুপুর ১ ঘটিকার সময়  গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-৭,কক্সবাজার ইউনিটের সদস্যরা শহরের খুরুস্কুল রাস্তার মাথা নামক স্থান থেকে একটি ব্যাটারি চালিত টমটম (যাহার লাইসেন্স নং-১১৪৮) গাড়িতে অভিযান চালিয়ে  দুটি বস্তা থেকে পাইপ বোমা (ওঊউ) তৈরি করার জন্য ৭৮ টি লোহার কেচিং এবং বিস্ফোরক দ্রব্যের নাম সম্বলিত ১ টি তালিকাসহ মো. করিম উল্লাহ (৪০) ও মোহাম্মদ রমিজ (৪২) কে গ্রেফতার করে।

সংবাদ সম্মেলনে লে. আশেকুর রহমান আরো বলেন, ধারণা করা হচ্ছে গ্রেফতারকৃত দু’জন কোন নিষিদ্ধ রোহিঙ্গা সংগঠনের সদস্য। কোনো নাশকতায় ব্যবহারে বোমা তৈরির জন্য সরঞ্জাগুলো আনা হচ্ছিল। গ্রেফতারকৃতরা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছে এই বোমা তৈরির সরঞ্জামগুলো কক্সবাজার সরকারি কলেজের পিছনের বাসিন্দা জনৈক মাওলানা শফিকের কাছে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। এ ব্যাপারে অধিকতর তদন্ত চলছে এবং তাদের পরিবারের বিষয়ে বিস্তারিত খোঁজ নেয়া হচ্ছে। একই সাথে বোমা তৈরির সরঞ্জাম গুলো কোথা এসেছে তা জানার অনুসন্ধান চলছে। উদ্ধারকৃত সরাঞ্জাম গুলো র‌্যাবের বিশেজ্ঞ দল পরীক্ষা-নিরীক্ষা করছে। গ্রেফতারকৃতদের অধিকতর জিজ্ঞাসাবাদ করে আরো অভিযান পরিচালনা করা হবে তিনি জানান।