ঢাকা, শুক্রবার, ১ জুলাই ২০২২

পেকুয়ায় উন্নয়ন মেলার উদ্বোধন

প্রকাশ: ২০১৭-০১-০৯ ২৩:৩৬:৪৩ || আপডেট: ২০১৭-০১-০৯ ২৩:৩৬:৪৩

সাইফুল ইসলাম বাবুল, পেকুয়া::

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের গৃহীত উন্নয়ন কার্যক্রম প্রান্ত্মিক পর্যায়ে জনগনের সামনে তুলে ধরার উদ্দেশ্যে উপজেলা পর্যায়ে আয়োজন করা উন্নয়ন মেলায় অংশগ্রহণ করেনি পেকুয়া উপজেলার তিন ইউনিয়ন পরিষদ।

গতকাল সোমবার ৯জানুয়ারী থেকে পেকুয়া চৌমুহনী চত্ত্বরে আয়োজিত তিনদিনব্যাপী এ উন্নয়ন মেলায় সরকারী প্রত্যেক দপ্তর অংশগ্রহণ করলেও পেকুয়া সদর, বারবাকিয়া ও শীলখালী ইউনিয়ন পরিষদ অংশগ্রহণ করেনি।

গত ২২ ডিসেম্বর ২০১৬ ইং তারিখে স্থানীয় সরকার, পলস্নী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রাণালয়ের অতিরিক্ত সচিব সৌরেন্দ্র নাথ চক্রবর্তী সাÿরিত এক প্রজ্ঞাপনে দেশের প্রত্যেকটি ইউনিয়ন পরিষদকে উন্নয়ন মেলায় অংশগ্রহণ করতে নির্দেশ দেওয়া হয়। এ প্রজ্ঞাপনের ২(চ) অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে, উপজেলা পরিষদের আওতাভূক্ত সকল ইউনিয়ন পরিষদকে উন্নয়ন মেলায় অংশগ্রহণ করতে হবে। এবং পৃথক পৃথক ষ্টলের মাধ্যমে বর্ণিত তিনটি স্স্নোগানের ব্যানার/ ফেস্টুন প্রদর্শণসহ বর্তমান সরকারের সময়ে ইউনিয়ন পরিষদ কতৃক বাস্ত্মবায়িত উন্নয়ন মূলক কার্যক্রম প্রদর্শণ করতে হবে। কিন্তু সরকারের এ আদেশকে সম্পূর্ণরূপে বৃদ্ধাংগুলি প্রদর্শণ করে ওই তিনটি ইউনিয়ন পরিষদ উন্নয়ন মেলায় অংশগ্রহণ করেনি।

এব্যাপারে শীলখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরম্নল হোসেন বলেন, মেলায় আমি উপস্থিত ছিলাম। আজ সকল ইউনিয়ন পরিষদ একটি স্টলে অংশগ্রহণ করার কথা ছিল। কিন্তু অপর ইউপি কার্যালয় তা না করে বরাদ্দকৃত স্টল দখল করে নেওয়ায় আমরা মেলায় অংশগ্রহণ করতে পারিনি। আগামীকাল (মঙ্গলবার) থেকে আমরা আলদা স্টলে অংশগ্রহণ করবো।

একইভাবে বারবাকিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বদিউল আলম জিহাদী বলেন, আমি আজর্ যালীতে উপস্থিত ছিলাম। আগামীকাল (মঙ্গলবার) থেকে আমরাও আলদা স্টলে অংশগ্রহণ করবো।

পেকুয়া সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বাহাদুর শাহ বলেন, স্টল সংকটের কারণে আমরা মেলায় অংশগ্রহণ করতে পারিনি।

পেকুয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জয়নাল আবদিন বলেন, উপজেলার সাতটি ইউনিয়ন পরিষদের জন্য মেলায় আলাদা আলাদা স্টল তৈরী আছে। তবে আজ স্টল সংকটের তারা মেলায় অংশগ্রহণ করতে পারেনি।