ঢাকা, রোববার, ৩ জুলাই ২০২২

পরকিয়ায় বেপরোয়া এসএম পাড়ার প্রবাসী নজরুল

প্রকাশ: ২০১৭-০১-০৮ ১৯:২৮:১৪ || আপডেট: ২০১৭-০১-০৮ ১৯:২৮:১৪

 

পরকিয়ায় বেপরোয়া এসএম পাড়ার প্রবাসী নজরুল
আবদুর রাজ্জাক,কক্সবাজার::

ঘরে সক্ষম সু-শ্রী স্ত্রী ও ফুটফুটে চার বছরের দুই শিশুর মায়া ত্যাগ করে কক্সবাজারের এস.এম পাড়ার সৌদি প্রবাসী নজরুল অন্য মেয়ের প্রলোভনে পড়ে নিজ সংসার ভাঙ্গতে মরিয়া হয়ে উঠেছে । এমনকি নজরুলের মা ভাই ভগ্নিপতিসহ কতিপয় আত্মীয়স্বজন তার অন্যায় আবদারে সমর্থন করে ঘরে থাকা সুন্দরী স্ত্রীকে অব্যাহত ভাবে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করা হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ঘটেছে কক্সবাজার পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ডস্থ এস.এম পাড়া এলাকায়।

প্রবাসী নজরুলের স্ত্রী রেজোয়ানা আফরিন পুষ্পের অভিযোগ,বিয়ের পর তাদের দাম্পত্য জীবন অন্তত্য সুখের ও শান্তিময় র্ছিল। স্বামীর অবর্তমানে শ্বাশুড়ী, দেবর, ভগ্নিপতিসহ বাড়ীর আরো কয়েকজন সদস্য তার উপর মাঝে মধ্যে শারীরিক নির্যাতন, মানসিক চাপপ্রয়োগ ও স্বাধীন চলাচলে বাঁধা প্রদানসহ নানাভাবে নিপড়ীন চালিয়ে আসলেও স্বামীর মুখের দিখে চেয়ে তা নীরবে নিঘ্রতে সয্যকরে গেছে। আমাকে তাড়ানোর জন্য নানা চক্রন্ত ও ষড়যন্ত্র অপপ্রচার, অপবাদ দিয়ে দীর্ঘদিন ধরে আমার স্বামী নজরুলের কান ভারী করে আসছে। কিন্তু আমার স্বামী তাদের নানা অপপ্রচার অপবাদ কুৎসারটনা কোন কিছুই আমলে নেইনি এর আগে। মাত্র কয়েক মাস আগে থেকে হঠাৎ করে আমার স্বামী আমার সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দেই। যোগাযোগ বন্ধ করার পূর্বে কারণে অকারণে নানা প্রশ্নে আমাকে জর্জরিত করে মানসিক ভাবে বিপর্যন্ত করে তোলে। বিশ্বস্ত সূত্রে জানতে পেরেছি মাত্র ১৫/২০দিন পুর্বে আমার স্বামী নজরুল সৌদি আরব থেকে দেশে ফিরলেও বাড়ী  আসেনি। মা,ভাই, বোনদের প্ররোচনায় ঢাকা, চট্টগ্রামসহ বিভিন্ন জায়গায় পালিয়ে বেড়াচ্ছে। নিয়মিত মা, ভাই, বোনদের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করে চললেও আমার সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দিয়েছে। লুকে মুখে জানতে পেরেছি, মা,বাই, বোনরা মিলে অন্য একটি মেয়ের সাথে বিয়ে ঠিক করেছে। হয়ত বিয়েও হয়ে যেতে পারে। ফুট ফুটে দুইটি ছেলে মেয়ে নিয়ে স্বামীর বসত বাড়ীতে আমি বর্তমানে ক্ষোভ অসহায় জীবন যাপন করছি। এ অবস্থায় চরম অর্থেকষ্ঠেও আমি জর্জরিত হয়ে পড়েছি। অথচ চলতি গত বছর মার্চ মাসে আমার স্বামী আমাকে সৌদি আরব নিয়ে গিয়ে ওমরা হজ্ব পালনে সুযোগ করে দিয়েছিলেন। ১৮ দিন পর তিনি আমাকে দেশে ফেরৎ পাঠান। আমাদের দাম্পত্য জীবনে কোন কলহ বিবাদ না থাকলেও শ্বাশ–ড়ী, দেবর,নননদের প্ররোচনায় সংসার ভাঙ্গার পূর্বেই আরেকটি যুবতি মেয়ে সাথে আমার স্বামীকে বিয়ে দেয়ার তোড়জোর শুরু করে দিয়েছে শ্বশুর বাড়ির লোকজন। এব্যাপারে আমি একজন সক্ষম নারী হিসেবে আমার স্বামীর অধিকার আমি পরিপূর্ণ ভাবে ভোগ করার সুযোগ সৃষ্টি জন্য সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি। উল্লেখ্য আমার স্বামীর নাম নজরুল ইসলাম খোকন, পিতা ফজলুল হক, জয়নাব বেগম, আমার দুই জমজ শিশুর মধ্যে ছেলে: ফাওয়াজ ইসলাম ও মেয়ে: মুরসালিনা জুমা।